চুকনগর বধ্যভূমি পরিদর্শন করেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রালয়ের উপ সচিব ডাঃ দুলাল কৃষ্ণ রায়

জাহাঙ্গীর আলম মুকুল, ডুমুরিয়া প্রতিনিধি: খুলনা নববর্ষের প্রথম দিনে ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বধ্যভূমিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রালয় এর উপ সচিব ও প্রকল্প পরিচালক ডাঃ দুলাল কৃষ্ণ রায়।

চুকনগর গণহত্যা (৭১(স্বৃতিরক্ষা পরিষদের সভাপতি এ বি এম শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অথিতি মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রালয় এর উপ সচিব ও প্রকল্প পরিচালক ১৯৭১ এ মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময় পাকিস্তান হানাদার বাহিনী কতৃক ব্যাবহৃত বধ্যভূমি সংরক্ষন ও স্বৃতি স্তাম্ভ নির্মাণ দ্বিতিয় পর্যায় প্রকল্প ডাঃ দুলাল কৃষ্ণ রায় বলেন ১৯৭১ সালের ২০ মে এখানে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন পাকিস্তানি বাহিনী হানা দেয়।

ব্রাশ ফায়ার করে প্রায় ১০ হাজার নারী-পুরুষ ও শিশুকে হত্যা করা হয় খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগরে। রচিত হয় চুকনগর গণহত্যার ইতিহাস। বাংলাদেশ শুধু নয়, ইতোপূর্বে সংঘটিত বিশ্বের সকল গণহত্যার ইতিহাস পর্যালোচনা করে দেখা গেছে চুকনগর গণহত্যাই বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণহত্যা। এত অল্প সময়ে এক জায়গায় এতগুলো মানুষকে হত্যার নজির।

তিনি আরও বলেন চুকনগর বধ্যভূমিতে উন্নয়নের জন্য যা যা করার দরকার তা আমি করবো এখানে লাইব্রেরী,যাদুঘর,রেস্টহাউজ,জমি অধিগ্রহণ, চুকনগর বধ্যভূমি পূনঃনির্মানে ৮৭ লক্ষ টাকা অনুমোদন করা হবে। ১৯৭১ সালের ২০ মে যে সমস্ত নারি পুরুষ পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাতে চুকনগর ও পার্শবর্তী মালতিয়া পাতোখোলার বিলে যারা শহিদ হয়েছিলো তাদের নামের তালিকা সংরক্ষন করার আহবান করেন।

এসম আরও উপস্হিত ছিলেন ৫নং আটলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যড প্রতাপ কুমার রায়,বীরমুক্তযোদ্ধা আবুল কালাম মহিঊদ্দিন,চুকনগর ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম(ব্রাউন) সহকারী অধ্যক্ষ আঃ হাফিজ মাহমুদ,প্রভাষক নিকুন্জ বিহারী মন্ডল,চ্যানেল এস ডুমুরিয়া উপজেলা প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম (মুকুল),প্রধান শিক্ষক আঃ সাত্তার মোড়ল,

প্রধান শিক্ষক দিপক কুমার মন্ডল,প্রধান শিক্ষক রমেশ চন্দ্র মন্ডল,প্রধান শিক্ষক অমিও রন্জন সরদার,প্রধান শিক্ষিকা সাহিদা খাতুন,প্রধান শিক্ষক শিব পদ বিশ্বাস, সহকারী শিক্ষক খলিলুর রহমান, সহকারী শিক্ষক বিশ্বজিৎ সরকার, সহকারী শিক্ষক আঃ রাজ্জাক মোড়ল,পল্লী চিকৎসক আশরাফুল ইসলাম,ইউপি সদস্য অসিম বিশ্বাস, সংরক্ষিত ইউপি সদস্য কুলছুম বেগম (পারুল) সংকর রায়,মোফাজ্জেল মোড়ল,আঃ সাত্তার গাজী,কুমারেশ মন্ডল প্রমুখ। উক্ত অনুষ্টানে সপ্তসুর সংগীত নিকেতনের ব্যানারে মোঃ কামরুজ্জামান বিশ্বাসের পরিচালনায় জাতীয় সংগীত ও দেশত্ববোধক গান পরিবেশন করা হয়।