চান্দিনায় পাওনা টাকা নিয়ে ঝগড়ার জের ধরে যুবককে ছুরিকাঘাতে খুন, ঘাতক আটক

আমির হোসেন, কুমিল্লা প্রতিনিধি। কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার বরকইট ইউনিয়নের লতিফপুর গ্রামের একটি চামড়ার কারখানায়

১২’শ টাকা পাওনার জের ধরে রফিকুল ইসলাম (৪০) নামে এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা হত্যাকারীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। শনিবার(১৭ এপ্রিল) বেলা ১টায় উপজেলার

বরকইট ইউনিয়নের লতিফপুর গ্রামের একটি চামড়ার কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,

শনিবার দুপুর ১টায় চান্দিনা উপজেলার বরকইট ইউনিযনের লতিফপুর এলাকার পার্শ্ববর্তী গ্রাম বরুড়া উপজেলার

আদমপুর গ্রামের হুমায়ুন কবিরের ছেলে খলিলুর রহমান (৩০) একই উপজেলার আরিফপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৪০)

ওরফে কাটা রফিক নামে এক ব্যক্তিকে পাওনা টাকা নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে রফিকুল ইসলামকে উপুর্যুপরি ছুরিকাঘাত করলে ঘটনাস্থলেই সে নিহত হয়।

স্থানীয় সূত্র থেকে আরো জানা যায়, খলিলুর রহমান স্থানীয় একটি চামড়ার কারখানায় কাজ করতেন।

নিহত রফিকুল ইসলামের কাছে খলিলুর ১২০০ টাকা পাওনা ছিলো। ঘটনার আগে পাওনা টাকা নিয়ে দুজনের মাঝে বাকবিতন্ডা হয়।

বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে চামড়া কারখানায় ব্যবহৃত ছুরি নিয়ে হত্যাকারী খলিলুর রহমান রফিকুল ইসলামের বুকের পাঁজরের নিচে

কয়েকবার ছুরিকাঘাত করলে সাথে সাথেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে এবং ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নিহত রফিকুল ইসলাম বরুড়া উপজেলার ৩নং উঃ খোশবাস ইউনিয়নের আরিফপুর গ্রামের ফজল মিয়ার ছেলে।

তবে সে গত ২৫ বছর ধরে মায়ের সাথে লতিফপুর মামার বাড়িতে থাকে। সে লতিফপুর গ্রামের মাংস ব্যবসায়ী মিলন মিয়ার ভাগীনা।

পরে স্থানীয়রা ঘাতক খলিলুর রহমানকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে চান্দিনা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আসামীকে থানা নিয়ে যায়।

চান্দিনা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শামছুদ্দিন ইলিয়াছ জানান, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাঁশের সুরতহাল তৈরি করে

লাঁশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছি।লাঁশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা আসামীকে আটক করে পুলিশে সৌপর্দ করেছে।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে