চাঁপাইনবাবগঞ্জে থানায় রিমান্ডে থাকা মাদক মামলার আসামীর মৃত্যু

ইসাহাক আলী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ  চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানায় রিমান্ডে থাকা হেরোইনসহ আটক মামলার আসামী আফসার আলীর মৃত্যু হয়েছে। তবে পুলিশের দাবি হাজতের বাথরুমে গলায় ষ্ট্যান্ড ফ্যানের তার পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে আফসার।

এদিকে, মৃতের পরিবারের দাবি পুলিশি হেফাজতেই মারা গেছে আফসার। সোমবার সন্ধ্যায় সদর মডেল থানায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান পিপিএম। মৃত আফসার আলী (৩৫) চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার টিকরামপুর মধ্যপাড়ার মোহাসিন আলীর ছেলে। রবিবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার সুন্দরপুর বাগডাঙ্গা শুকনাপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১ কোটি সাড়ে ১৯ লক্ষ টাকার ১ কেজি ১৯৫ গ্রাম হেরোইনসহ মাদক ব্যবসায়ী আফসার আলীকে আটক করে র‌্যাব ৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান পিপিএম সোমবার রাত ১১টায় জানান, ‘গত রবিবার র‌্যাবের অভিযানে হেরোইনসহ আটকের পর র‌্যাব সদর মডেল থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দিয়ে আফসারকে পুলিশে সোর্পদ করে। এ ঘটনায পুলিশ ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আফসার আলীকে আদালতে সোপর্দ করলে ১ দিনের রিমান্ড মুঞ্জুর করে আদালত। সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে আদালত থেকে আফসারকে নিয়ে এসে থানা হাজতে রাখা হলে ৭ টা ২০ মিনিটের সময় সে হাজত খানার স্ট্যান্ড ফ্যানের তার গলায় পেঁচিয়ে বাথরুমে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

এসময় ডিউটিরত পুলিশ কনস্টেবল আলমগীর সিসিটিভিতে দেখতে পেয়ে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আফসারকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক রুহানী আকতার আসামী আফসারের মৃত্যুর কারণ হিসেবে জানান,‘ মূলত বুকের ব্যাথা এবং শ্বাসকষ্টেই মারা যায় আফসার আলী।

তবে আফসারের স্ত্রী জুলেখা বেগমের দাবি অসুস্থতা বা আত্মহত্যা নয়, পুলিশি হেফাজতে নির্যাতনেই মারা গেছে তার স্বামী। ঘটনার পর অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট জাকিউল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, মঙ্গলবার মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে প্রাথমিকভাবে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। মৃত্যুর পর আফসারের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।