চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনাল ঘাট ও গাড়ি পাকিং এর নিয়ন্ত্রনের দায়িত্ব কার?

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি : চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনাল ঘাট ও গাড়ি পাকিং এর দায়িত্ব কার? এমন প্রশ্ন ভোক্তভোগি যাত্রি সাধারনের। চাঁদপুর জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সাবেক পুলিশ সুপার জিহাদুল কবিরের নির্দেশে সাবেক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান এবং চাঁদপুর সদর সার্কেল জাহেদ পারভেজ চৌধূরী চাঁদপুর লঞ্চ ঘাটে গাড়ি পাকিং স্থানে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনেছিলেন।

এরা সরকারি চাকুরি জনিত কারণে অন্যত্র বদলি হয়ে যাওয়ায় এখন আর লঞ্চ টার্মিনাল ঘাটে কোনো প্রকার শৃঙ্খলা নেই। এখানে যে যে সড়কে সি এন জি নিয়ে যাবে তা নির্ধারন করে সাইন বোর্ড পর্যন্ত স্থাপন করে দিয়েছে।আর এখন যে যে ভাবে পারছে গাড়ি রেখে যানজট সৃস্টি করে রাখছে।

জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে লঞ্চ যাত্রীরা যাতে নিবিঘ্নে যাতায়াত করতে পারে সে জন্য সিমেন্টের তৈরি ব্যাকার সিকলে বেঁধে দেয়া হয়েছিল। এখন সেই সব ব্যাকার চালকরা ফেলে দিয়েছে।সিকল গুলো ছিরে ফেলেছে। বি আই ডব্লিউ টি এ ‘র লোকজন পাকিং চার্জের নামে অর্থ উত্তোলন করতে লঞ্চ ঘাটের যাতায়াতের সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃস্টি করছে।

বন্দর কর্মকর্তা কাউসার আহমেদ সঠিক ভাবে লঞ্চ টার্মিনাল ঘাটের তদারকি করছে না। তার কাছে কোনো কিছু জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ইজারা নিয়ে ব্যস্থ আছি। ইজা প্রক্রিয়া শেষ হলে আমি সব করবো। কিন্তু কবে ইজারা শেষ হবে তা তিনি নিজে ও জানেন না।