চাঁদপুর বালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম ছুটে চলছেন ক্লান্তিহীন জনসেবায়

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি:  চাঁদপুর সদর উপজেলার ৯নং বালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলামের বিশ্ব করোনা পরিস্থিতিতে ও থেমে নেই তার মানব সেবা। প্রতিনিয়ত তিনি ছুটে চলছেন ইউনিয়নে মানুষদের দৌড় গোড়ায়। বিভিন্ন ভাবে তিনি সেবা দিয়ে চলছেন। তৃনমূলের অসহায়, দুস্থ্য, মধ্যবিত্তসহ সর্ব শ্রেনীর মানুষের ভাল মন্দের সার্বিক বিষয়গুলো অবিরাম দেকবাল করছেন। ইউনিয়নের সর্বশ্রেনীর মানুষ তাজুল ইসলামের কর্মকান্ডে সন্তুষ্ঠ রয়েছেন। অসহায়, দিনমজুরের মানুষের কল্যানে কাজ করায় তিনি এখন ইউনিয়নে সকলের আস্থর প্রতীক হয়ে উঠেছেন। লোভ লালশার উদ্ধে থেকে তিনি যে ভাবে সকলকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তার সত্যি প্রশংসনীয়।

বর্তমান সময়ের করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার প্রথম থেকেই তাজুল ইসলাম ইউনিয়নে সচেতনতামূলক প্রচারনা শুরু করেন। ইউনিয়নের জন্য সরকারি বরাদ্ধকৃত ত্রানগুলো যথা নিয়েমে বিতরন করে চলছেন। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় তাজুল ইসলামের কর্মকান্ডে জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন সন্তুষ্ঠ রয়েছেন। বিশ্ব করোনা পরিস্থিতিতে বালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলামের জনসেবা সর্বস্তরের দৃষ্টান্ত স্থাপন হয়েছে। কালের আবর্তনে তাজুল ইসলামের জনসেবা মানুষের গল্পে আড্ডায় থাকবে। ৭১রে যুদ্ধ করে এ দেশ স্বাধীন করেছে জাতীর কিছু বীরসেনারা। তাদের কল্যানেই আজ আমরা স্বাধীন দেশে বসবাস করছি। বর্তমান বিশ্বের করোনা যুদ্ধে তাজুল ইসলাম নিজের জীবনকে উৎসর্গ করে বালিয়ার সর্বস্তরের মানুষের শতভাগ সেবা নিশ্চিত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন, রাজনীতিক ব্যাক্তিবর্গ, সমাজ প্রতিনিধিসহ সর্বস্তরের মানুষ তার কাজে ব্যাপক প্রশংসা করে যাচ্ছেন। তাজুল ইসলাম বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের অভিভাবকের দায়িত্ব নেওয়ার পর ইউনিয়ন থেকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, বাল্য বিয়ে, শিক্ষারহার বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ করছেন তিনি। স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন নিয়েই তিনি কাজ করছেন। তার নির্বাচনী ইশতেহার শতভাগ বাস্তবায়নের লক্ষ্য নিইে এখন পর্যন্ত তিনি মানুষকে সেবা দিচ্ছেন।

বালিয়া ইউনিয়নকে একটি মডেল ইউনিয়ন গড়ার স্বপ্ন রয়েছে তার। বালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলামের কঠোর তত্ত্বাবধায়নে সুনামের সাথেই দিন দিন বালিয়া ইউনিয়ন এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি ইউপি সচিবসহ ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ড সদস্যদের সাথে নিয়ে করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনসাধারনকে সচেতন করে যাচ্ছেন। ইউনিয়ন মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটেশান, হ্যান্ড গ্লাভস, সাবান ঔষুধ বিতরন করেছেন। ক্লিন ইমেজের একজন, সৎ আদর্শবান মানুষ হিসেবে তার সুনার সর্বমহলে রয়েছে। তিনি যে ভাবে মানব সেবা দিচ্ছেন, তা সত্যি এক বিষ্ময়কর ইতিহাস। তাজুল ইসলাম বলেন, আমি জনগনের ভোটে নির্বাচিত হয়েছে। তাই সব সময় জনগনের সেবা দিতেই আমি প্রতিশ্রুতবদ্ধ । বিশ্ব করোনা মোকাবেলায় কোন মানুষ যাতে আমার পরিষদে এসে হয়রানি না হয়, সেলক্ষ্য নিয়েই আমি কাজ করছি। সরকারে যাতে বদনাম না হয়, সেজন্য সরকারে দেওয়া ত্রানগুলো দূরত্ব বজিয়ে রেখে বিতরন করে যাচ্ছি। বিদেশ ফেরত, নারায়নগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আগতদের হোমকোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করছি। বালিয়াকে করোনা মুক্ত রাখার জন্য সর্বশ্রেনীর মানুষ আমাকে সহযোগীতা করে যাচ্ছে। এজন্য আমি সকলের কাছে ঋনি।