চাঁদপুরে প্রবাস থেকে ফিরেছে ৫ সহস্রাধিক; টেস্ট হয়েছে মাত্র ২ জনের

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধিঃ দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর থেকে এ পর্যন্ত চাঁদপুর জেলায় করোনা সন্দেহজনক রোগীদের মধ্যে টেস্ট হয়েছে মাত্র ২ জনের । টেস্টের ফলাফলে জানা গেছে, তাদের কেইউ করোনায় আক্রান্ত ছিলেন না। এদের একজন কিছুদিন চাঁদপুরসরকারি জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটি ভর্তি ছিলেন।

এছাড়া সন্দেহভাজন বহু রোগীর সন্ধান মিললেও কারোই করোনা পরীক্ষা করা হয়নি। এর ফলে চাঁদপুরে জেলায় প্রকৃতপক্ষে কতজন করোনায় আক্রান্ত তা জানা সম্ভব হচ্ছে না। তবে আশার কথা হচ্ছে- ঢাকার বাইরে চট্টগ্রাম বিভাগের জেলাসমূহের সন্দেহভাজন লোকদের করোনা টেস্ট করার জন্য চট্টগ্রামে একটি নতুন পরীক্ষাগার চালু হচ্ছে। এছাড়া চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালেও সন্দেহভাজন রোগীদের করোনা টেস্টের নমুনা সংগ্রহের প্রস্তুতি চলছে। এর ফলে করোনা টেস্ট আগের চেয়ে অনেক সহজ ও দ্রুত হবে বলে আশা করছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।

চাঁদপুরে জ্বর, সর্দি, কাশি রোগীর সংখ্যা বেশি হলেও করোনা ভাইরাস সনাক্তে গত ৩১ মার্চ মঙ্গলবার পর্যন্ত ২ জন ব্যতিত কারোই রোগ নির্ণয়ের নমুনা পরীক্ষা করা হয়নি। এর মধ্যে একজন মতলব উত্তরের এবং আরেকজন মানিকগঞ্জ থেকে আসা তরুণ হকার।

জানা যায়, মতলব উত্তরের বিদেশ ফেরত একজনকে প্রথম করোনা টেস্ট করা হয়। তার রেজাল্ট নেগেটিভ আসে। অন্যদিকে গত শুক্রবার চাঁদপুর লঞ্চঘাটে অসুস্থ এক তরুণকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাকে আইসোলেশন বিভাগে রাখা হয়। টেস্টে তার ফলাফলও করোনা নেগেটিভ আসে। পরে জানা যায়, সে যক্ষ্মা রোগে আক্রান্ত।

সিভিল সার্জন অফিস ও জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, গত ১ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত চাঁদপুরে ৫১৪৬ জন বিভিন্ন দেশ থেকে এসেছেন। আর দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে চাঁদপুর এসেছেন বহু লোক। এত বিপুল সংখ্যক প্রবাসী করোনা টেস্টের আওয়তার বাইরে থাকায় তাদের নিয়ে খোদ চিকিৎসকরাও চিন্তিত।

সিভিল সার্জন ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্ল্যাহ জানান, এখন পর্যন্ত আমরা ২ জনের করোনা টেস্ট করিয়েছি। তাদের কারো শরীরে করোনা নেই। এছাড়া কারোর নমুনা পরীক্ষা হয়নি কিংবা নমুনা পরীক্ষা করার তেমন কাউকে অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।