চাঁদপুরে খাবার পানির জন্য হাহাকার করছে লঞ্চঘাটে লঞ্চ স্টাফরা

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকারঃ কেভিড ১৯ করোনা ভাইরাস বৈশ্বিক মহামারি আকাড় ধারন করায় সরকার দেশের সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ রেখেছে।যাতে কোনো বরোনায় আক্রান্ত ব্যাক্তি যানবাহনে চলাচল করে এ রোগ ছরাতে না পারে সেজন্য। গত ১৫মার্চ থেকে দেশের নৌ, সড়ক, রেল পথে যানবাহন চলা চল বন্ধ রয়েছে।এতে করে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে আটকা পরা চারটি লঞ্চের স্টাফরা পরেছে নানা মুখি সমস্যার মাঝে।বিশেষ করে খাবার পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। চাঁদপুর লঞ্চঘাটে সরকার বন্ধ ঘোষণা করার পর থেকে চারটি লঞ্চেরর শতাধিক স্টাফ নানা মুখি সমস্যায় রয়েছে।

সোনার তরী লঞ্চের ইনচার্জ মাস্টার মোঃ ইব্রাহিম খলিল জানান, সরকার যেদিন থেকে যানবাহন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে সে দিন আমরা ঢাকা থেকে যাত্রি নিয়ে চাঁদপুর চলে আসি। সেইথেকে আমরা এখানে অবস্হান করছি।আমাদের লঞ্চের কয়েক জন স্টাফ বন্ধ ঘোষণার পূর্বে ছুটি নিয়ে বাড়ি চলে গেছে।বর্তমানে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে সোনার তরী, ঈগল,প্রিন্স অব রাসেল, সহ চারটি লঞ্চের প্রায় ৮০জন স্টাফ অবস্হান করছে। এখানে বড় সমস্যা হচ্ছে খাবার পানির সংকট।লঞ্চ ঘাটে নেই খাবার পানির ব্যবস্হা। আমরা বিভিন্ন বাসা বাড়ি থেকে ২/১টি কলসি বা পাত্র করে পানি সংগ্রহ করে এনে পিপাসা মিটাতে হচ্ছে।স্হায়ি ভাবে যদি এখানে ঢিপ কল বসানো থাকতো তাহলে আমরা এ করোনা মহামারির সংকটময় মুহূত্বে আমরা পিপাসা মিটাতে পারতাম।

লঞ্চ মালিক প্রতিনিধি বিল্পব সরকার বলেন, আমরা লঞ্চ স্টাফদের খাবার পানির জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে বলেছি। তাছাড়া পৌরসভার সচিব মহোদয়ের সাথেও পানির বিষয়টির নিয়ে বলা হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত খাবার পানির ব্যবস্হা করা হয়নি।লঞ্চের স্টাফরা খাবার পানির সমস্যায় রয়েছে।