চাঁদপুরে আইসোলেশনে ৩ জনসহ করোনা উপসর্গে আরো ৭ মৃত্যু

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি:  শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গে চাঁদপুরে আইসোলেশনে ৩ জনসহ জেলায় আরো ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে চাঁদপুর সদরে ৩ জন, হাজীগঞ্জে ২ জন, মতলব উত্তরে ১ জন এবং ফরিদগঞ্জে ১জন রয়েছে। ১২ জুন শুক্রবার সকালে চাঁদপুর ২৫০শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে মুক্তিযোদ্ধাসহ ৩ জনের মৃত্যু হয়। মৃতরা হলেন, ফরিদগঞ্জ উপজেলার দিবাকর (৫০), চাঁদপুর শহরের দক্ষিণ গুনরাজদী এলাকার মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন ( ৬৭) ও শহরের গুয়াখোলার বাসিন্দা জয়দল (৬৩) । চাঁদপুর সদর হাসপাতাল সূত্র জানায়, সবাই করোনার উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশনে ভর্তি হয়েছিল।

তাদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন (৬৭) বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১ টায় ভর্তি হন। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় মারা যান। গুয়াখোলার জয়দল (৬৩) বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় ভর্তি হন। শুক্রবার সকাল ৯ টায় মারা যান। ফরিদগঞ্জের দিবাকর (৭৩) গত ৮ জুন ভর্তি হন। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় মারা যান। এছাড়া বৃহস্পতিবার রাতে চাঁদপুর পৌরসভার ১৪ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ মোফাজ্জল হোসেন পাটওয়ারী (৮০)করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয় এ ছাড়া ফরিদগঞ্জের দিবাকর (৭৩) গত ৮ জুন সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর আর পরিবারের কেউ তার খবর নেয়নি। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এদিকে হাজীগঞ্জে করোনা উপসর্গে মৃত ২জন হলেন সদর ইউনিয়নের বাউড়গা গ্রামের সর্দার বাড়ির আবদুল মমিন (৫৭) ও পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. আবুল বাসার (৭৫)। তাদের দু’জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্যানেটারি অফিসার মো. জসিমউদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টায় সদর ইউনিয়নের বাউড়া গ্রামের সর্দার বাড়ির আবদুল মমিন (৫৭)কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জ্বর ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে ভর্তি করে তার পরিবার। রাত ২টায় আবদুল মমিন মৃত্যুবরণ করেন। ১২ জুন শুক্রবার সকাল সোয়া ৯টায় হাজীগঞ্জ পৌরসভাধীন ৬নং ওয়ার্ডে গত ৫ জুন করোনার উপসর্গে নিহত আবদুল আউয়ালের বাবা মো. আবুল বাসার (৭৫) মৃত্যুবরণ করেন।

আবদুল আউয়ালের মৃত্যুর পর তার জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের আমিরাবাদ এলাকার কাতারিকান্দি গ্রামে করোনার উপসর্গ নিয়ে মোঃ জামান (১২) নামে এক বালকের মৃত্যুু হয়েছে। সে ঐ গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে। শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে গ্রামের নিজ বাড়িতেই মারা যান ওই বালক। মোঃ জামান বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়িতে আসে। মোঃ জামানের উপসর্গে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. নুশরাত জাহান মিথেন। মৃতের নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।