চট্টগ্রামের দৈনিকে কর্মরত সাংবাদিকরা সিইউজে ছাড়তে বাধ্য হচ্ছে

মোঃ রাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ বাধ্য হয়ে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিচ্ছে চট্টগ্রামে কর্মকর্ত বিভিন্ন পত্রিকার সাংবাদিকরা।

ইতিমধ্যে নিজেদের পত্রিকায় কর্মরত সাংবাদিকদের সদস্যপদ ‘প্রত্যাহারের ঘোষণার’ পর পত্রিকা প্রকাশে রাজি হয়েছে দৈনিক আজাদী কর্তৃপক্ষ। তবে আজাদী কর্তৃপক্ষ পত্রিকা প্রকাশে সম্মত হলেও কবে থেকে পত্রিকার প্রকাশনা শুরু হবে সেটি নির্ভর করছে অপর দৈনিক পূর্বকোণের সিদ্ধান্তের উপর।

দৈনিক আজাদীর সম্পাদক এম এ মালেক বৃহস্পতিবার বলেন, তার পত্রিকার সাংবাদিকরা সিইউজে থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্তটি তাকে ‘লিখিতভাবে’ জানিয়েছেন। তাই সাংবাদিকরা মালিক পক্ষের ‘সঙ্গে থাকায়’ পত্রিকা প্রকাশে তার কোনো সমস্যা নেই।

যেহেতু একসাথে সব পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ হয়েছে, সেহেতু দৈনিক পূর্বকোণের অভ্যন্তরীণ সমস্যার সমাধান হলেই পত্রিকা প্রকাশ শুরু হবে।” শুক্রবার দুপুরের মধ্যে সমস্যা সমাধান হলে শনিবার থেকে সব পত্রিকার প্রকাশ হবে আশা প্রকাশ করেন আজাদী সম্পাদক মালেক।

পূর্বকোন ও পূর্বদেশ পত্রিকায় কর্মরত সাংবাদিকরা এ বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেয়নি বলে জানা গেছে। তবে তাদের উপরও ইউনিয়ন ছাড়া চাপ রয়েছে বলে জানা গেছে। পূর্ণাঙ্গ ঈদ বোনাসের দাবিতে গত ২৯ জুলাই দৈনিক আজাদীর মালিক ও সম্পাদক এমএ মালেকের বাসা ঘেরাও করে সমাবেশ করে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)।

বাসার সামনে সমাবেশ করাকে ‘নজিরবিহীন ও অশোভন’ উল্লেখ করে পরদিন থেকে চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত পাঁচটি পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ রাখে চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন ‘নিউজ পেপার অ্যালায়েন্স (সিএনএ)’।

চট্টগ্রাম থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজাদী, দৈনিক পূর্বকোণ, দৈনিক পূর্বদেশ, সুপ্রভাত বাংলাদেশ, বীর চট্টগ্রাম মঞ্চ পত্রিকাগুলো ঈদের ছুটির আগে দুই দিন প্রকাশিত হয়নি। ঈদের ছুটি শেষে গত ৪ অগাস্ট বিভিন্ন পত্রিকা প্রকাশ হলেও চট্টগ্রামের কোনো আঞ্চলিক পত্রিকার কার্যালয় খুলেনি এবং প্রিন্ট ভার্সনের পাশাপাশি অনলাইন সংস্করণও বন্ধ রেখেছে।