ঘুরে আসি মিরসরাই মহামায়া লেক

কানিজ শ্রাবনী : মহামায়া লেক (Mohamaya Lake) চট্রগ্রামের মিরসরাইয়ে অবস্থিত বাংলাদেশের অন্যতম কৃত্রিম হৃদ। মিরসরাইয়ের দুর্গাপুর ইউনিয়নের ঠাকুরদিঘী বাজার থেকে মাত্র দুই কিলোমিটার দূরে পাহাড়ের কোলে ১১ বর্গ কিলোমিটার জায়গাজুড়ে মহামায়া লেক গড়ে উঠেছে। লেকের টলটলে পানি আর পাহাড়ের মিতালী ছাড়াও এখানে পাহাড়ি গুহা, রাবার ড্যাম ও অনিন্দ্য সুন্দর ঝর্ণা রয়েছে। বোটে চড়ে লেকে ঘুরার পাশাপাশি চাইলে পাহাড়ের গা বেয়ে নেমে আসা ঝর্ণার শীতল পানিতে ভিজে শরীর ও মনকে অপার্থিব প্রশান্তি দিতে পারেন। মহামায়া লেকে আছে কায়াকিং করার সুবিধা এবং চাইলে তাবুতে রাতে ক্যাম্পিং করে থাকতেও পারবেন। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণে থাকা মহামায়া লেকটির পানির কিছু অংশ পার্শ্ববর্তী এলাকায় সেঁচের কাজে ব্যবহৃত হয়।

এই লেকে কায়াকিং করারও সুযোগ রয়েছে। ঘুরে বেড়াতে পারবেন মহামায়া লেকের ৮ কিলোমিটার এলাকায়। কায়াকিং-এর জন্য ঘন্টা প্রতি খরচ হবে ৩০০ টাকা। ছাত্রদের জন্য এই খরচ ২০০ টাকা। তবে স্টুডেন্ট আইডি কার্ড দেখাতে হবে। এক কায়াকে চড়া যাবে ২ জন।

সকাল ৯টা থেকে বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত কায়াকিং করা যায়। কায়াকে ওঠা সবার জন্য লাইফ জ্যাকেট থাকে, তাই যারা সাঁতার পারেন না তারাও কায়াকিং করতে পারবেন।

এছাড়া মহামায়া লেকে ঘুরে বেড়ানোর জন্য ইঞ্জিনচালিত বোট আছে। মাঝারি মাপের ইঞ্জিনচালিত বোটে ঘন্টা প্রতি ভাড়া পড়বে ৮০০-১০০০ টাকা। একসাথে ৮-১০ জন উঠতে পারবেন এই বোটে। আর বড় বোটে ঘন্টা প্রতি ভাড়া পড়বে ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা। এসব বোটে একসাথে ১৫-২০ জন উঠতে পারবেন।

পিকনিকের জন্য মহামায়া দারুণ একটা জায়গা। এখানে এসে আপনি রান্নাবান্না করেও খেতে পারেন। তা ছাড়া অনেকেই লেকের কোলে অবস্থিত বিস্তীর্ণ ভূমিতে ফুটবল কিংবা ক্রিকেট খেলায় মেতে ওঠে।

মহামায়া লেকে প্রবেশের জন্য প্রতিজন ১০ টাকা দিয়ে টিকেট করতে হবে।

এখানে ক্যাম্পিং করার সুযোগও রয়েছে। সপ্তাহের যেকোনো দিন রাতের বেলা ক্যাম্পিং করা যাবে। সময় সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরদিন সকাল ৭টা পর্যন্ত; এর মূল্য জনপ্রতি ৬০০ টাকা।

কিভাবে যাওয়া যায়:

ঢাকার কমলাপুর থেকে বিআরটিসির বাসে আসতে পারেন। অথবা সায়েদাবাদ থেকে এসি, নন-এসি বিভিন্ন বাস সার্ভিস রয়েছে। তাতে করে সরাসরি চলে আসুন চট্টগ্রামের মিরসরাই। সেখান থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা কিংবা হিউম্যান হলারে করে আসতে পারবেন লেকে। অটোরিকশায় ভাড়া পড়বে একশো টাকা। এছাড়া হিউম্যান হলারে ভাড়া পড়বে ১০ টাকা।

ট্রেনে ঢাকা-চট্টগ্রামের রুট ট্রেনে বা সিলেট থেকে সড়ক ও রেলপথে চট্টগ্রাম আসা যায়। চট্টগ্রাম নগরীর মাদারবাড়ি থেকে সরাসরি বাস সার্ভিসে করে চলে যেতে পারেন মিরসরাইয়ের মহামায়া লেকে। কিংবা অলংকার সিটি গেট থেকে যেকোনো লোকাল বাসেও যেতে পারবেন মিরসরাই। সময় লাগবে ১ ঘন্টা। ভাড়া ৪০ থেকে ৭০ টাকা।

এছাড়া, ট্রেনে আসলে ফেনী রেলওয়ে স্টেশন নামতে পারেন। তারপর স্টেশন থেকে ইজিবাইকে করে মহিপাল বাসস্ট্যান্ড তারপর চট্টগ্রামগামী যেকোন বাসে ঠাকুরদীঘি বাজার আসতে ভাড়া-৩০/৪০ টাকা।