গ্রামের নাম পরিবর্তন করে জামাতি নাম দিলো মাদানী নগর, মুছে দিয়েছে প্রশাসন

মাহফুজুর রহমান বাপ্পী, বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি:  বাগেরহাটের শরণখোলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের পশ্চিম রাজৈর গ্রামের নাম পরিবর্তন করে মাদানী নগর রাখছিল জামায়াতের একটি চক্র। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। সচেতন মহলের পক্ষ থেকে এর প্রতিবাদ জানালে শনিবার তা আবার মুছে দেয় উপজেলা প্রশাসন।

স্থানীয়রা জানান, রাজাকারের প্রতিষ্ঠাতা জামায়াতের সাবেক কেন্দ্রিয় নায়েবে আমীর মাওলানা একে এম ইউসুফ এর বাড়ি উপজেলার পশ্চিম রাজৈর গ্রামে। একারণে ওই গ্রামে ঘাটি তৈরী করে জামায়াত। সম্প্রতি গ্রামটির এক কিলোমিটার বিভিন্ন জায়গায় মাদানী নগর নাম দিয়ে প্রচারণা চালায় জামায়াতের একটি চক্র। স্থানীয় মৃত আঃ খালেক আকনের পুত্র শিবির নেতা রফিক আকন উঠতি বয়সের কতিপয় যুবককে ধর্মীয় অনুভুতি দিয়ে একত্রিত করে।

এরপর গ্রামের নাম পশ্চিম রাজৈর পরিবর্তন করতে সওজ বিভাগের মাইল স্টোনসহ ব্রিজ ও বিভিন্ন পিলারের গায়ে মাদানী নগর লিখে দেয়। এরপর তারা বিভিন্ন ফেইসবুক মেসেঞ্জারে ওই গ্রামের নাম মাদানী নগর করা হয়েছে বলে প্রচারণা চালায়। বিষয়টি নিয়ে গ্রামবাসী বিভ্রান্তিতে পড়েন। এরপর সচেতন মহল ও স্থানীয় সাংবাদিকরা এ ঘটনার প্রতিবাদ জানান।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শিবির নেতা রফিক সাংবাকিদের বিষেদাগার করেন। ঘটনাটি বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মামুনুর রশিদ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন ও শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ এসকে আব্দুল্লাহ আল সাইদকে জানালে শনিবার সকালে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে মাদানী নগর লেখা মুছে ফেলেন। এ সময় স্থানীয়রা শিবির নেতা রফিকের শাস্তি দাবী করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন বলেন, কাউকে না জানিয়ে একটি গ্রামের নাম পরিবর্তন করা চরম অপরাধ। বিষয়টি নজরে আসায় তাদের দেয়া নাম মুছে ফেলা হয়েছে। এর সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে এখন আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হবে।