গোয়েন্দা পুলিশের বিশেষ অভিযানে চাকুরী দেয়ার প্রতারণা প্রতারক চক্রের মুলহোতা গ্রেফতার

সৈয়দ মাসুদ, রাজশাহী প্রতিনিধি: মোঃ আতিকুর রহমান(২৮), পিতাঃ-মোঃ আঃ জলিল আসামীদের বিরুদ্ধে উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি), আরএমপি রাজশাহী বরাবর অভিযোগ দেন যে, তিনি ও তার আরো ০৬ জন বন্ধুকে পাবনা জেলার ঈশ্বরদীতে নির্মানাধীন রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে চাকুরী দিবে বলে সর্বমোট = ৫,২৭,০০০/- টাকা গ্রহণ করে।

কিন্তু আসামীরা চাকুরী না দিয়ে তাদের সাথে প্রতারণা করে। টাকা ফেরত নেয়ার জন্য ইং ২২/০৬/২০২০ তারিখ সকাল অনুমান ১১.৩০ ঘটিকায় বাড়ী থেকে সিএনজি যোগে চন্দ্রিমা থানাধীন শালবাগান এলাকায় নামা মাত্রই ০১ ও ০২ নং আসামীসহ অপরিচিত ৪/৫ জন লোক অভিযোগকারীকে হত্যার হুমকী দিয়ে চোখ বেঁঝে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে আটক করে রাখে।

মারপিট করে খুন করে লাশ গুম করে ফেরবে বলে ভয় দেখিয়ে ০৩ টি লিখিত স্ট্যাম্পে আসামীরা = ৭,০০,০০০/- টাকা পাবে মর্মে স্বাক্ষর করে নেয়। বিষয়টি সম্পর্কে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুলিশ পরিদর্শক জনাব মোঃ মশিয়ার রহমান এর নের্তৃত্বে এসআই/মোঃ মিজানুর রহমান সরকার, এসআই/সুবাস চন্দ্র বর্মণদেরকে সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান পরিচালনা করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে চাকুরীর প্রলোভন দিয়া প্রতারণা করে টাকা নিয়া আত্মসাৎ করার অভিযোগে ০১ নং আসামী মোঃ এএইচএম মহিবুল আলম @ তিমুকে গ্রেফতার করে এবং তার হেফাজতে থাকা স্ট্যাম্প ও ব্যাংকের চেক উদ্ধার করা হয়।

এ সংক্রান্তে অভিযোগকারী চন্দ্রিমা থানায় একটি এজাহার দায়ের করলে চন্দ্রিমা থানার অফিসার ইনচার্জ সাহেব চন্দ্রিমা থানার মামলা নং-১৬, তারিখ-২৩/০৬/২০২০ ইং, ধারা-৩৪১/৩৪২/৪০৬/৪২০/৩৮৬/৫০৬ /৩৪ পেনাল কোড রুজু করেন। মামলাটি গোয়েন্দা শাখা কর্তৃক তদন্ত চলছে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রতিবেদনের মাধ্যমে আদালতে প্রেরণ করা হইয়াছে। অন্যান্য আসামীদের প্রেফতারে অভিযান অব্যহত আছে।