গাজীপুরে চার দিনে করোনায় আক্রান্ত ২জন, শ্বাসকষ্ঠ জনিত রোগে মারা গেছেন ১জন, মোট আক্রান্ত ৩৩৮ জন

আশজাদ রসুল সিরাজী, গাজীপুর প্রতিনিধি : গাজীপুর সিভিল সার্জন অফিসের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী গাজীপুরে চার দিনে নতুন করে ২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন । এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা হয়েছে ৩৩৮ জন। ইতোমধ্যে ১১৮ জন সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া, গাজীপুরে আক্রান্ত এক শ্রমিকসহ অন্য জেলা থেকে আক্রান্ত হয়েছে এমন আরো ১০ পোশাক শ্রমিকের করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। কোভিড-১৯ শনাক্ত ছয় পোশাক শ্রমিক হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। তাদের মধ্যে দুইজনের ময়মনসিংহে অবস্থানকালে নমুনা পরীক্ষায় এ রোগ শনাক্ত হয়। পরে তারা ওই অবস্থায় গাজীপুরে চলে আসে।

“বাকি চারজন গত ২২ এপ্রিল সুনামগঞ্জ জেলায় নমুনা পরীক্ষা করে। পরে ৫ মে তাদের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে।”

সুনামগঞ্জের চারজন যে দুটি কারখানায় তিনদিন কাজ করেছেন তাদের সংস্পর্শে আসা শ্রমিকদের নামের তালিকা বৃহস্পতিবার কর্তৃপক্ষের কাছে চাওয়া হয়েছে। পরে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। আর এ চারজন যে বাড়িতে অবস্থান করছেন বৃহস্পতিবার ওই বাড়ির আরও ছয়জনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

গাজীপুর শিল্পাঞ্চল পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুশান্ত সরকার বলেন, শুক্রবার পর্যন্ত গাজীপুরে সাত পোশাক কারখানার দশজন শ্রমিক কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। গত ২৬ এপ্রিল প্রথম জয়পুরহাট জেলার এক পোশাক শ্রমিক আক্রান্ত হলে তাকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এরপর ১ মে নওগাঁ জেলার এক শ্রমিককে টঙ্গীর গণস্বাস্থ্য হাসপাতালে, ২ মে রংপুর জেলার একজন ও ৬ মে লালমনিরহাট জেলার এক শ্রমিককে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়াও আরও ৬ আক্রান্ত শ্রমিক হোম আই সোলেশনে রয়েছেন বলে জানান তিনি। আরো জানাযায়, গাজীপুরের কালীগঞ্জে উপজেলার নিজ বাড়ীতে ঠান্ডা ও শ্বাসকষ্ঠ জনিত রোগে এক বৃদ্ধ মারা গেছেন ।

শুক্রবার সকালে ভাতার্দী দক্ষিণপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে ৫০ বছর বয়সী এই ব্যক্তির মৃত্যু হয় বলে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সাদিকুর রহমান আকন্দ জানান। সাদিকুর রহমান জানান, এই ব্যক্তি কিছুদিন ধরে শ্বাসকষ্ট ও সর্দিসহ করোনাভাইরাস সংক্রমণের লক্ষণ নিয়ে ভুগছিলেন বলে স্থানীয়রা জানান। নিহতের স্বজনরা জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে হাঁপানিজনিত শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। গত ডিসেম্বরে তিনি হাসপাতাল থেকে যক্ষার চিকিৎসা নিয়েছেন। করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য বিকালে তার নমূনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে জানান তিনি। গাজীপুর।