গাজীপুরে কারখানা শ্রমিকদের বিক্ষোভ

 আশজাদ রসুল সিরাজী, গাজীপুর প্রতিনিধিঃ গাজীপুর শহরের ভোগড়া বাইপাস এলাকায় বকেয়া বেতন পরিশোধ করে কারখানা খুলে দেওয়ার দাবিতে শ্রমিকরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। এ সময় তারা মোটরসাইকেল ও বাইসাইকেলে আগুন দিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেন। এতে ওই সড়কে জরুরি যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশ গিয়ে কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস ঠেকাতে পরস্পর থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

এ কারণে সরকার গত ২৫ মার্চ প্রায় সবকিছু বন্ধ করে সবাইকে ঘরে থাকতে বলে। এর প্রায় এক মাস পরে রোববার কিছু সরকারি-বেসরকারি কারখানা চালু হয়। কিন্তু কাজ না থাকার কথা বলে অনেক কারখানা বন্ধ রাখা হয়েছে। গাজীপুর শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত সুপার মো. জালাল উদ্দিন জানান, “ভোগড়া এলাকার ‘স্টাইলিশ গার্মেন্টস’ নামে একটি পোশাক কারখানার মালিক কর্তৃপক্ষ এক মাসের জন্য (৩০ এপ্রিল পর্যন্ত) কারখানা বন্ধ ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি দেয়।

তাদের ৩০ জন শ্রমিকের বেতন এবং ৮০ জন কর্মচারীর ৬০ শতাংশ বেতন বকেয়া রয়েছে।” শ্রমিকরা দুই দিন ধরে ওই কারখানা খুলে দেওয়ার পাশাপাশি বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবি জানিয়ে আসছেন। পুলিশ কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন বলেন, সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শ্রমিকরা কারখানার সমানে জড়ো হন। পরে তারা আশপাশের ভলমন্ট ফ্যাশন, ক্রাউন ফ্যাশন, টেকনো ফাইবার নামের চালু থাকা বিভিন্ন কারখানার শ্রমিকদের কাজ না করার আহ্বান জানান।

সে সময় তারা ওই সব কারখানায় ইটপাটকেল ছোড়েন। “একপর্যায়ে তারা ক্রাউন ফ্যাশন কারখানার সামনে মহাসড়কের পাশে পার্কিং করা তিনটি মোটরসাইকেল ও আটটি বাইসাইকেলে আগুন দেন। প্রথমে তাদের মহাসড়ক ছেড়ে যেতে অনুরোধ জানানো হলেও তারা সাড়া না দেননি। পরে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। গাজীপুর