গলাচিপায় এক কিশোরীকে গণধর্ষন, গ্রেফতার ৫জন

শপথ দাস, গলাচিপা প্রতিনিধি:  পটুয়াখালীর গলাচিপায় এক কিশোরীকে গণধর্ষনের কারনে ৫জনকে গ্রেফতার করেছে গলাচিপা থানা পুলিশ।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গলাচিপা থানা পুলিশ রাত্র ২টার সময় পুরান লঞ্চঘাট এলাকায় সৈকত বোডিং থেকে অভিয্ক্তু ৫আসামি গ্রেফতারসহ ভিকটিমকে উদ্ধার করে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার সন্ধায় গজালিয়ার এক কিশোরী গলাচিপায় ডাক্তার দেখাতে এসে গণধর্ষনের স্বীকার হয়।
তার বোনের বাড়ি সোনাখালী যাওয়ার সময় গলাচিপা ফেরিঘাটে অবস্থান করলে পথিমধ্যে পূর্ব পরিচিত ১নং আসামি মোঃ শহিদুলের সাথে দেখা হয়। তাকে রাতে সৈকত বোডিং এর ৭নং রুম বুকিং করে দেয় শহিদুল। রাতে শহিদুল দরজা নক করে রুমের ভিতরে ঢোকে এবং তাকে জোড় পূর্বক ধর্ষণ করে।
শহিদুল সহ আরও ৪জন মোট ৫জন রাত ৮টা থেকে ২টা পর্যন্ত পালাক্রমে ধর্ষণ করে। আসামীরা হলেন, ১। মোঃ শহিদুল সরদার (২৪), ২। মোঃ বশির গাজী (৩২), ৩। স্বপন সিকদার (৪০), ৪। জীতেন হাওলাদার (৩৫), ৫। খোকন ডাক্তার (৪৫)। এ ব্যাপারে গলাচিপা থানার উপ-পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন,
গলাচিপা থানায় কিশোরী বাদি হয়ে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। কিশোরীকে মেডিক্যাল পরিক্ষার জন্য পটুয়াখালী হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে এবং আসামীদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।