গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারে যাওয়া জেলেদের নিরাপত্তা দাবী

আনোয়ার হোসেন আনু, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর কুয়াকাটার মৎস্য বন্দর আলীপুর নৌ-যান শ্রমিকদের অধিকার আদায় ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করণে সংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছে। বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়ন আলীপুর শাখার উদ্যোগে রোববার সকাল ১০টায় আলীপুর থ্রি পয়েন্ট সংলগ্ন মেসার্স হিমি এন্টার প্রাইজ এর অফিস কার্যালয় এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়ন এর কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ডেমরা ঘাট শাখার সভাপতি মোঃ জাকির হোসেন বলেন, কুয়াকাটা সহ উপকূলীয় অঞ্চলের অধিকাংশ মানুষ মাছের উপর নির্ভরশীল। অথচ এ এলাকার গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারে যাওয়া ট্রলার মালিকরা কোটি কোটি টাকা ব্যয় করে একটি ট্রলার গভীর সমুদ্রে পাঠান।

সেখানে যারা জীবন বাজি রেখে পরিবার পরিজন ফেলে গভীর সুমদ্রে মাছ শিকারে যান, তাদের জন্য নেই কোন জীবন রক্ষাকারী সরঞ্জামাদির ব্যবস্থা। তিনি আরও বলেন নোভেল করোনা ভাইরাস মহামারি রোগে সারা বিশ্ব স্থবির হয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে ঘটে গেল ঘুর্ণিঝড় আম্ফান। ঘুর্ণিঝড় আম্ফানের ফলে অনেক পরিবার অর্থনৈতিকভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। সরকার তার সামর্থ অনুযায়ী ওই সকল পরিবারদের আর্থিক সহায়তা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী দিয়েছেন।

অথচ কুয়াকাটার মৎস্য বন্দর আলীপুর-মহিপুরের নৌ-যান শ্রমিকদের জন্য চোখে পড়ার মত কিছু করেনি। সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত শ্রমিকরা বলেন,জেলেরা ঝুকিঁ নিয়ে সমুদ্রে মাছ শিকার করছে। অনেক সময় ঘুর্নিঝড়ে ট্রলার ডবে নিখোঁজ কিংবা প্রানহানী ঘটে। ওই সকল পরিবার তখন দূর্বিসহ জীবনযাপন করতে হয়। তাই শ্রকিরা নিবন্ধিত জেলেদের জন্য ঝুকিঁ ভাতা চালু করার দাবী জানান।