গভীর রাতে রাস্তায় হেলে পরা গাছ সরিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বারহাট্টা থানার ওসি মিজানুর রহমান

মামুন কৌশিক, বারহাট্টা (নেত্রকোণা ) প্রতিনিধিঃ “মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য।মানুষের সেবাই হল পরম ধর্ম।” নেত্রকোণার বারহাট্টা থানার ওসি মিজানুর রহমান একের পর এক মানবিক দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন।এবার গভীর রাতে রাস্তায় হেলে পরা গাছ সরিয়ে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তিনি।

এলাকাবাসী এবং প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায়,রাত তিনটার দিকে বারহাট্টা থানার টহল টিম পৌঁছায় মোহনগঞ্জ রোডের অতিথপুর বাজারে।সেখান থেকে মাত্র ২৫০ গজ দূরেই একটা রেন্টি গাছ রাস্তায় হেলে পরে যানচলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।তাৎক্ষণিক রাতেই স্থানীয় লোকজন এবং নিজেদের ডিউটি অফিসার দের নিয়ে করাত ও অন্যান যন্ত্রাংশ আনিয়ে গাছটি কাটার ব্যবস্থা করান ওসি মিজানুর রহমান।

এ বিষয়ে স্থানীয় এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান যে, হঠাৎ আমার ঘরে কাছে একজন ডাকছিল চাচা বাড়িতে আছেন।বের হয়ে দেখি উনি একজন পুলিশ।আমাকে উনি বলেন যে, রাস্তায় একটা গাছ পরে গেছে চলেন আমরা সবাই মিলে গাছটি সরিয়ে ফেলি যাতে সকালে মানুষজনের চলাচলে অসুবিধা না হয়।ওই পত্যক্ষদর্শী এবং গাছ সরানোর কাছে অংশ নেওয়া লোকটি আরও বলেন যে, ওসি সাব গাছ সরানোর কাজ নাও করতে পারতেন তিনি আসলেই একজন ভাল লোক। এ বিষয়ে বারহাট্টা থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন যে, রাত তখন ০৩ঃ০০ টা বাজে আমি রাত্রীকালীন ডিউটি তদারকি সহ নেত্রকোণা মোহনগঞ্জ রোডে টহল দিচ্ছি। উক্ত রোডের অতীত পুর নামক স্থানে (অতীথ পুর বাজার হতে অনুমান ২৫০ গজ পশ্চিম দিকে) পৌছার পর দেখি রাস্তার পাশের একটি রেন্টিগাছের গোড়া হতে মাটি সরে যাওয়ায় রাস্তার উপর হেলে পড়েছে । দুদিকে গাড়ি চলাচল বন্ধ। রাস্তার পাশে পানি, পানি পার হয়ে পাশের বাড়ির লোকজনদের ডেকে উঠিয়ে তাদের নিকট হতে দা, কুঠার নিয়ে তাদের সহায়তায় গাছ কেটে গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা করার চেষ্টা। গাছের ডাল গুলো বড় হওয়ায় দা,কুঠার দিয়ে কাটা সম্ভব হচ্ছিল না।তাই আমার একজন অফিসারকে পাঠিয়ে বড় করাত সহ লোকজন জনদের ঘুম থেকে ডেকে আনা হলো। তারপর আমার পুলিশ সদস্য সহ ডেকে আনা অন্যান্যদের সহায়তায় প্রায় দেড় ঘন্টা পরিশ্রম করে রাত সাড়ে চারটার দিকে গাছটি সরিয়ে রাস্তায় যান চলাচলের ব্যবস্থা করা হলো।ধন্যবাদ যারা এ-ই গভীর রাতে পুলিশের ডাকে সারা দিয়ে সহায়তা করেছেন।