খুলনার রূপসা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আকবরের দাফন সম্পন্ন

আঃ রাজ্জাক শেখ, খুলনা প্রতিনিধিঃ রূপসা উপজেলার রহিমনগর মানিক সরদারের মাঠে রোববার আসরবাদ দিত্বীয় দফা নামাজে জানাযা শেষে উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলী আকবর শেখকে স্থানীয় কলোণী কবরস্থানে চির নিদ্রায় শায়ীত করা হয়েছে। জানাযা নামাজে দলীয় নেতা-কর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ গ্রহণ করেন। জানাযা নামাজের আগে রূপসা উপজেলা আওয়ামীলীগ, নৈহাটী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, রূপসা উপজেলা যুবলীগ, রূপসা উপজেলার সাবেক ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ, রহিমনগর কলোণীবাসী তাকে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান।

এসময় তার কর্মময় বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনী নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন খুলনা-৬ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ আক্তারুজ্জামান বাবু, নৈহাটী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন বুলবুল ও যুবলীগ নেতা সরদার কামরুল ইসলাম। জানাযা নামাজে অংশ গ্রহণ ও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুজিত অধিকারী, আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু এমপি, সাবেক কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের উপ- কমিটির সদস্য অসিত বরণ বিশ্বাস, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. কামাল উদ্দীন বাদশা, জেলা বিএনপি’র সহ- সভাপতি মোল্লা খায়রুল ইসলাম, জেলা বিএনপি’র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবু হোসেন বাবু, সোনাডাঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের তসলিম আহমেদ আশা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার আবুল কাসেম ডাবলু, জেলা পরিষদ সদস্য এস এম খালেদীন রশিদী সুকর্ণ, সরদার ফেরদাউস আহমেদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল্লাহ যোবায়ের, ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন বুলবুল প্রমুখ।

জানাযা নামাজ পরিচালনা করেন হাফেজ মাওলানা আল-আমিন। দিত্বীয় দফা নামাজে জানাযার পূর্বে খুলনার দলীয় কার্যালয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে জোহরবাদ প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তালুকদার আব্দুল খালেক এবং জেলা আওয়ামী লীগসহ দলের বিভিন্ন অঙ্গসংঠনের পক্ষ থেকে তাকে শেষবারের মত শ্রদ্ধা জানানো হয়। প্রসঙ্গত, আজ রোববার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বাসায় থাকা অবস্থায় সাবেক চেয়ারম্যান আলী আকবর শেখের বুকে ব্যাথা দেখা দেয়। সাথে সাথে তাকে খুলনা সিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সকাল ৮ টার দিকে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

পরে তার লাশ বড় ভাই ওয়াহিদুজ্জামান লাবুর কাষ্টমঘাটের বাসায় আনা হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক পুত্র সন্তান, ভাই-বোন ও আত্মীয়-সজনসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। আলী আকবর রূপসা উপজেলার রহিমনগর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের সেজো ছেলে। তিনি খুলনার সার্কিট হাউজ মাঠের সন্নিকটের বাসায় বসবাস করতেন। এর আগে গত ২৯ জুন আলী আকবর হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে খুলনার ফরটিক্স ক্লিনিকে ভর্তি হন। সেখানে তার অপারেশন করে হার্টে রিং পরানো হয়। রূপসা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আকবর শেখ একজন পরিছন্ন রাজনীতিক হিসেবে ছিলো তার ব্যাপক পরিচিতি। ছিলেন সদালপি ও সুমিষ্টভাষি। কারো বিপদ-আপদের সংবাদ শুনলেই ছুটে যেতেন। যে কারণে ২০০৯ সালের উপজেলা নির্বাচনে তিনি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হন।