‘ক্ষমতায় গেলে অপসারণ করা হবে সব ভাস্কর্য’

ক্ষমতায় গেলে অপসারণ করা হবে বাহাত্তরের সংবিধান-সব ভাস্কর্য বললেন হেফাজত নেতা মামুনুল হক।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতা মামুনুল হকের দাবি অনুযায়ী, ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র বিনির্মাণের উদ্দেশ্যে কেউ মুক্তিযুদ্ধ করেনি। বাহাত্তরের সংবিধানের মাধ্যমে এসব চেতনা জনগণের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। তারা কোনদিন ক্ষমতায় যেতে পারলে অপসারণ করা হবে দেশের সব ভাস্কর্য।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের বিরোধিতা গড়িয়েছে ভাঙচুর পর্যন্ত। কুষ্টিয়ায় ভাস্কর্য ভাঙচুরে জড়িত থাকার দায়ে গ্রেপ্তার চার মাদ্রাসা ছাত্র-শিক্ষকের বরাতে পুলিশ বলেছে, হেফাজতে ইসলামের আমীর জুনায়েদ বাবুনগরী, যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক ও ইসলামী আন্দোলনের নেতা ফয়জুল করিমের বক্তব্যে অনুপ্রাণিত হয়ে ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে তারা।

বিরোধিতা করলেও ভাস্কর্য ভাঙচুর করতে বলেননি বলে মামুনুলের দাবি। তিনি বলেন, কেউ যদি আমার বক্তব্যকে ভুলভাবে নেয় বা ভুলভাবে ব্যাখ্যা করে বা পর্যালোচনা করে তাহলে তার দায় আমি নিবো না।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিশের মহাসচিবের দায়িত্বে থাকা মামুনুল বলেন, কোনদিন ক্ষমতায় যেতে পারলে দেশের সব ভাস্কর্য অপসারণ করা হবে। সংবিধান হবে ইসলামের ভিত্তিতে।

ধর্মনিরপেক্ষ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনার বিষয়ে মামুনুল বলেন, ধর্মনিরপেক্ষতার যে চেতনার কথা বলা হয় একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধেও আমরা সেই চেতনা খুঁজে পাইনি। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নতুন একটি চেতনা দাঁড় করানো হয়েছে যেটা বাহাত্তরের সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সেটাকে আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হিসেবে গ্রহণ করতে রাজী না।