কোটালীপাড়ায় নিহত মাদ্রাসা ছাত্রের পরিবারে চলছে শোকের মাতম

জেমস বাড়ৈ, কোটালীপাড়া প্রতিনিধিঃ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় অন্যের গাছ থেকে আম পাড়ার অভিযোগে আমানুল্লাহ শেখ (১৫) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নিহত আমানুল্লাহ উপজেলার কুশলা ইউনিয়নের চৌরখুলী গ্রামের কৃষক জাকির হোসেন শেখের ছেলে। সে উপজেলার কুশলা আলিয়া মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেনীর ছাত্র।

এ ঘটনায় নিহত আমানুল্লাহর পরিবারে চলছে এখন শোকের মাতম। অপরদিকে নিহত আমানুল্লাহর পিতা জাকির হোসেন শেখ বাদী হয়ে কোটালীপাড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, গত সোমবার বেলা ১২টার দিকে আম পাড়ার অপরাধে মাদ্রাসা ছাত্র আমানুল্লাহকে পার্শ্ববর্তী আউয়াল শেখের ছেলে রফিকুল শেখ বাবু ও আউয়াল শেখের ছেলে রহিম শেখ লোকজন নিয়ে আমানুল্লাহকে মারপিট করেন। এতে সে গুরুতর আহত হয়।

আহত আমানুল্লাহকে প্রথমে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে আমানুল্লাুহর মৃত্যু হয়। নিহত আমানুল্লাহ মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

অপরদিকে আমানুল্লাহকে হত্যার অভিযোগে অভিযুক্ত রফিকুল ইসলাম শেখ বাবু ও রহিম শেখের পরিবারের লোকজন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। নিহত আমানুল্লাহর চাচা জাহিদ শেখ বলেন, খুনি রফিকুল ইসলাম শেখ বাবু ও রহিম শেখ আমার সামনে আমানুল্লাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। আমি প্রতিহত করতে গেলে তারা আমাকেও মারধর করে। এ ব্যাপারে জানার জন্য রফিকুল ইসলাম শেখ বাবু ও রহিম শেখের বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি।

কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, নিহত আমানুল্লাহর পিতা জাকির হোসেন শেখের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযুক্ত আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। অপরদিকে এলাকায় পুলিশ মোতায়েত করা হয়েয়ে। এলাকার অবস্থা বর্তমানে শান্ত রয়েছে।