কুড়িগ্রামে মার্কেটে দোকানগুলোয় ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়; মানছে না স্বাস্থ্যবিধি

 মজাহারুল ইসলাম মিলন, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামে মার্কেটে দোকানগুলোয় ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় মানছে না স্বাস্থ্যবিধি।জেলার উলিপুর,চিলমারী,রৌমারীসহ বিভিন্ন উপজেলার দোকানগুলোয় ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেনা-বেচার কথা থাকলেও বেশিরভাগ দোকানে তা মানা হচ্ছে না। শনিবার (১৬ মে) সরেজমিনে উলিপুর ও চিলমারী বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে প্রচুর মানুষের আনাগোনা রয়েছে। বিশেষ করে পোশাক ও জুতার দোকানে নারীদের বেশি ভিড় লক্ষ্যনীয়।
তারা সঙ্গে শিশু সন্তানদেরও নিয়ে এসেছেন। দোকানগুলোয় গা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে পণ্য কিনছেন তারা। অনেকের মুখেই নেই মাস্ক।মার্কেটে মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। দোকানে যারা পণ্য বিক্রি করছেন তাদেরও হাতে কোনও গ্লাভস এবং মুখেও নেই মাস্ক। এছাড়াও সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত দোকান খোলা রাখার কথা থাকলেও অনেক দোকান এরপরও খোলা রাখা হচ্ছে। বাজারে পণ্য কিনতে আসা অনেকেই বলেন, পরিবারের জন্য জামা পোশাক কিনতে এসেছিলাম। কিন্তু বাজারে মানুষের ভিড় দেখে ভয়ে জামা না কিনে বাড়ি ফিরে যাচ্ছি। করোনার কারণে সামাজিক দূরত্বের কথা বললেও তোয়াক্কাই করছে না কেউ। বাজারে মানুষ যেভাবে ঘুরছে তাতে করোনা আক্রান্তের ঝুঁকি বাড়ছে।
এ বিষয়ে প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার দাবী জানিয়েছেন সচেতন নাগরিক মহল। শনিবার(১৬ মে) দুপুরে কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক(ডিসি) মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান,ব্যবসায়ীরা স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কার্যক্রম পরিচালনা করতে জেলা প্রশাসনকে প্রতিশ্রুতি দিয়েও তা মানছে না।মানুষের সচেতনতায় ‘মুখে মাস্ক নাইতো বাজার নাই’ এরকম বিলবোর্ড ও পোষ্টার বাজারের বিভিন্ন জায়গায় লাগানো হয়েছে।এখন থেকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে কঠোরভাবে মনিটরিং করা হবে।স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব না মানলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এব্যাপারে কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম জানান,বাজারে বেশ ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে।
পুলিশের একার পক্ষে এটি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়।জেলাবাসীকে সচেতন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে অনুরোধ করা হয়েছে। পুলিশ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।মানুষকে সচেতন হতে হবে।জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় পুলিশ সহযোগিতা করবে।