কুড়িগ্রামে আবার পানিবৃদ্ধি চিলমারী শহরসহ নতুন করে ৫০ গ্রাম প্লাবিত

মজাহারুল ইসলাম মিলন, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামে অবিরাম বৃষ্টির কারণে ধরলা নদীর পানি গত ২৪ ঘন্টায় ২০ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে আবারো পানিবন্দী হয়ে পরেছে ধরলা নদী তীরবর্তী মানুষ।

অপরদিকে ব্রহ্মপূত্র নদের পানি অপরিবর্তিত থাকলেও বিপদসীমার উপরে অবস্থান করায় টানা তিন সপ্তাহ ধরে মানুষ অবর্ণনীয় কষ্টের মধ্যে রয়েছে। এদিকে চিলমারী উপজেলার কাঁচকোল এলাকায় ভাঙ্গা রাস্তা দিয়ে বন্যার পানি প্রবেশ করে চিলমারী উপজেলা শহরসহ নতুন করে আরো ৫০গ্রাম প্লাবিত করেছে।

এ নিয়ে জেলার ৩ লক্ষ পানিবন্দী মানুষ মানবেতর জীবন যাপন করছে। জেলার ৭৩টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫৬টি ইউনিয়নের ৪৭৫টি গ্রাম পানির নীচে তলিয়ে আছে। লোকজন বন্যার পানির মধ্যে বাড়ির ভিতর চৌকি উঁচু করে, রাস্তায়, রেললাইন ও বাঁধে অবস্থান নিয়েছে। সরকারিভাবে এখন পর্যন্ত ১৭০ মেট্রিকটন জিআর চাল, ৯ লক্ষ টাকার ত্রাণ উপজেলাগুলোর মাধ্যমে বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও শিশু খাদ্য ও গবাদিপশুর জন্য ৪ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানিয়েছে গত ২৪ ঘন্টায় ধরলা নদীর পানি ব্রীজ পয়েন্টে ৫৯ সেন্টিমিটার, ব্রহ্মপূত্র নদের পানি চিলমারীতে ৬৫ ও নুনখাওয়া পয়েন্টে ৪৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। টানা ৩ সপ্তাহ ধরে বন্যার পানি বিপদসীমার উপরেই অবস্থান করছে। ফলে খাদ্য সংকটে ভুগছে মানুষ।