কুলিয়ারচরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোর খুন

জয়নাল আবেদীন রিটন, ভৈরব প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে বন্ধুর বাঁশের আঘাতে ইমন মিয়া (১৭) নামে এক কিশোর নিহত হবার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ রোববার সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার ছয়সূতি ইউনিয়নের বড়সূতি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে বলে জানায় নিহতের স্বজনরা। নিহত ইমন বড়সূতি গ্রামের ইব্রাহিম মিয়ার ছেলে সে একজন পাদুকা কারিগর। তার নিহতের খবরে ওই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।
স্বজনদের আহাজারীতে ভাড়ী হয়ে উঠে ওই এলাকার বাতাস। কোন সান্তনাতেই থামানো যাচ্ছেনা আহাজারী। সন্তানহারা মা আর বোনের আহাজারীতে প্রতিবেশীদের চোঁখ ও অশ্রুসজল হয়ে উঠে। খবর পেয়ে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, একই গ্রামের মজিবুর মিয়ার ছেলে রুহুল আমিনের সঙ্গে ইমনের বন্ধুত্ব ছিল। দুপুর বারোটার দিকে ইমন সহ আরো ৫ বন্ধু সড়কের পাশের মোদীর দোকানী মিজানের দোকানে বসে গল্প করছিলো। এ সময় ইমনের হাতের ছাতাটি রহুল দূরে ফেলে দেয়ায় রহুল কে ফাজিল বলে গালি দেয় ইমন। এ নিয়ে উভেয়ের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়।
এক পর্যায়ে রহুল ক্ষিপ্ত হয়ে একটি বাশ দিয়ে পিছন দিক থেকে মাথায় আঘাত করে। আঘাতে ইমন মারাত্বক আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে কুলিয়ারচর উপজেলাৎস্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। কুলিয়ারচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পক্ষ থেকে অভিযোগ প্রাপ্তি সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।