কাঁঠালবাড়ি ঘাট বিলুপ্ত, চালু হচ্ছে বাংলাবাজার

পদ্মা সেতুর নদী শাসনের কাজের কারণে কাঁঠালবাড়ি থেকে ৫০০ মিটার উজানের বাংলাবাজারে ফেরি ঘাট স্থানান্তরিত হচ্ছে আজ সোমবার। এখন ফেরি চলবে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে। রোরো ও ডাম্পসহ সব ধরনের ফেরি চলাচল শুরু হতে যাচ্ছে এ ঘাট দিয়ে।

এর আগে ২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি কাওড়াকান্দি ঘাট সরিয় আনা হয়েছিল কাঁঠালবাড়িতে। তখন মাদারীপুর জেলার শীবরচরের এ ঘাটের নামকরণ করা হয় ইলিয়াস আহমেদ ঘাট। এখনও ইলিয়াস আহমেদ ঘাট নামকরণই থাকবে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) ম্যানেজার (মেরিন) আহাম্মদ আলী  জানান, ইতোমধ্যেই দুটি ঘাট সরিয়ে আনা হয়েছে বাংলাবাজারে। কয়েক দিনের মধ্যে বাকি দুটি ঘাটসহ লঞ্চ ও স্পিডবোট ঘাটও সরিয়ে আনা হবে। তিন বছর পর এই ঘাট স্থানান্তেরর কারণে দূরত্ব বাড়ল আধা কিলোমিটার। বর্তমানে বিকল্প চ্যানেল ফেরির দূরত্ব ছিল সাড়ে ১২ কিলোমিটার। আর বাংলাবাজার-শিমুলিয়া ঘাটের দূরত্ব হচ্ছে ১৩ কিলোমিটার।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী শারফুল ইসলাম জানান, পদ্মা সেতুর নদী শাসনের কারণে ঘাটটি স্থানান্তর করতে হচ্ছে। নতুন ঘাটে সব ব্যবস্থাসহ সুযোগ সুবিধাই থাকছে। যাত্রীদের কষ্ট হবে না।

বিআইডব্লিউটিএর সহকারী প্রকৌশলী হারিস আহম্মেদ চৌধুরী বলেন, নতুন এ ঘাটে আগের মতোই চারটি ফেরিঘাট এবং নিরাপদ দূরত্বে লঞ্চ ও স্পচঘাট থাকছে। ঘাট যথা সময়ে স্থানান্তর করে চালু রাখার ব্যাপারে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের স্বার্থেই ঘাট সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। এতে যাত্রী ভোগান্তি হবে না।