কলমাকান্দায় করোনা মহামারিতে জমজমাট কোচিং বাণিজ্য, আতঙ্কে এলাকাবাসী

জাহাঙ্গীর আলম, নেত্রকোণা প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে দেশের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ যখন আতঙ্কে ঠিক তখনি অসাধু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক জমজমাট কোচিং বাণিজ্যে মেতে উঠেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ অভিযোগ উঠেছে নেত্রকোণার সীমান্তবর্তী উপজেলা কলমাকান্দা সদর ইউনিয়নের সৌলজান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আল-মামুনের বিরুদ্ধে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সহকারী শিক্ষক আল মামুন প্রতিদিনই নিজের বাড়িতে পার্শ্ববর্তী স্বরনিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থীদের নিয়ে তিনি কোচিং পরিচালনা করছেন।

বিনিময়ে প্রতি শিক্ষার্থীর নিকট থেকে মাস প্রতি ৭শত-৮শত টাকা করে টাকা আদায় করছেন। সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রতিদিনের মতই বিগত ১১ জুন (বৃহস্পতিবার) সকালে একটি ছোট রুমে গাঁদাগাঁদি করে ৩৫-৪০ শিক্ষার্থীকে নিয়ে কোচিং ক্লাস শুরু করলে গ্রামের লোকজন তাতে বাঁধা দেন। এ সময় শিক্ষক আল-মামুন তাদের অসদাচরণ করে ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।

এরই প্রেক্ষিতে স্বপ্রণোদিত হয়ে সরকারী বিধিভঙ্গ করে সহকারী শিক্ষক আল-মামুনের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিক্ষা অফিস বরাবর অভিযোগ দাখিল করেন শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবক মঞ্জুরুল হক। কলমাকান্দা উপজেলা শিক্ষা অফিসার মনিরুল ইসলাম অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন বিষটি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সৌলজান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আল মামুনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।