করোনা রোগী আইসোলেশনে আতস্কে রোগী শুন্য নাইক্ষ্যংছড়ি হাসপাতাল

রানা মারমা, বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা তুমব্রু এলাকায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত বৃদ্ধ আবু ছিদ্দিককে (৫৯) আইসোলেশনে রাখায় আতস্কে রোগী শুন্য হয়ে পড়েছে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর হাসপাতাল।

হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, বহির্বিভাগ ও জরুরি বিভাগসহ পুরো হাসপাতাল ফাঁকা, শয্যা গুলো ফাঁকা পড়ে আছে। করোনা ভাইরাস সংক্রামণ আতস্কে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

হাসপাতালটির মেডিকেল অফিসার ডা: আবু রায়হান জানান, উপজেলার তুমব্রু এলাকার বাসিন্দা (৫৯) বছরের এক বৃদ্ধের করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয় গত ১৭এপ্রিল। সেই দিন রোগীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখে মোবাইলে চিকিৎসা দেয়া হয়।পরদিন ১৮এপ্রিল কর্মকর্তার নির্দেশে রাতে সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

সপাতাল সুত্রে জানা গেছে করোনা পরিস্থিতির আগে ৫০শয্যার এ হাসপাতালের আউটডোরে প্রতিদিন চিকিৎসা সেবা নিতে আনতেন ১১০জন থেকে ১২০জন রোগী। জরুরি বিভাগে থাকতো ৩০ থেকে ৫০জন। করোনা পরিস্থিতির কারনে সেটা নেমে এসেছে ১০থেকে ২০ জনে। চলতি এপ্রিল মাসের আউটডোরে প্রথম সপ্তাহেও হাসপাতালে রোগী দেখা হতো ২০থেকে ৩০জন।অথচ উপজেরা তুমব্রু এলাকায় করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ার সংবাটি উপজেলায় ছড়িয়ে পড়লে আতস্কে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ১৬এপ্রিল ভর্তি হয়১১জন, ১৭এপ্রিল ভর্তি হয় ৮জন।করোনা সনাক্ত রোগীকে হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিট রাখার খবর পেয়ে দুই তিন জন নিয়ম মাফিক ছাগপত্র নিলেও অন্য সব রোগী না বলে পালিয়ে যায়।