করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের স্বাস্থ্যসেবা বিশ্বব্যাপী প্রসংশিত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনাকালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা নিয়ে প্রায় মহলে সমালোচনা থাকলেও কোভিড ১৯ মহামারি মোকাবিলায় এ মন্ত্রণালয়ের ‘সফলতা’ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ সারা দুনিয়া স্বীকৃতি দিয়েছে বলে দাবি করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, আমেরিকা-ইংল্যান্ডের মতো দেশ যখন করোনা মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে, তখন আমাদের দেশে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি নির্দেশনায় স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টায় আক্রান্তের হার কমে এসেছে। বাংলাদেশের নানামুখী পদক্ষেপ বিশ্বব্যাপী প্রসংশিত হয়েছে।

রোববার (৪ অক্টোবর) সকালে রাজধানীর শিশু হাসপাতালে পক্ষকালব্যাপী ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে এক সময় রাতকানা রোগের প্রাদুর্ভাব ছিল, ভিটামিন এ ক্যাম্পেইনের ফলে আজ সেটি এক শতাংশেরর নিচে নেমে এসেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু প্রথম এ ক্যাম্পেইন শুরু করেছিলেন।

করোনা মোকাবিলা নিয়ে মন্ত্রী বলেন, উন্নত দেশের অনেক রাষ্ট্রপ্রধান আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতিবেশী দেশ ভারতে যখন প্রতিদিন এক হাজারের বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে, আমাদের দেশে এ হার তখন ২০ থেকে ৩০ এর মধ্যে।

করোনা-কালে কোভিডের পাশাপাশি নন-কোভিড সেবাও ‘ভালো ভাবে’ দেয়া হয়েছে বলে দাবি করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘কোনো স্বাস্থ্য সেবা থেমে থাকেনি। কোভিডের পাশাপাশি নন-কোভিড সেবা পুরোদমে দিতে পেরেছি। সব ধরনের স্বাস্থ্য সেবা ভালোভাবে বজায় রেখেছি।’

সবাইকে আবারো স্বাস্থ্যবিধি মানার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, কোভিড কাউকেই ছাড়ছে না। কোভিড মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকেও আক্রান্ত করেছে। তাই সাবধানতা অবলম্বন করলেই কোভিড ঠেকানো যাবে।

মন্ত্রী বলেন, কোভিড নিয়ন্ত্রণে কেবল ভ্যাকসিন নয়, প্রয়োজনে সবার সতর্কতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।