করোনা বদলে দিচ্ছে পেশা

মোঃ লুৎফর রহমান, হিলি (দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর হিলিতে অনেক যুবক করোনায় পেশা বদলে নিচ্ছে হাকিমপুর হিলি পৌর সভার ৫নং ওয়ার্ন্ডের জহুরুল ইসলাম সে হিলি পৌর সভা এলাকাকে ভাড়া আটোরিক্সা চালাতো বেশ সংসার চলতো। কিন্তু করোনার দুর্যোগকালে বেশি দিন গাড়িটা বন্ধ থাকায় নষ্ট হয়ে গেচ্ছে। গাড়ি মালিক ঠিক না করায় কর্মহীন হয়ে পড়েছেন তিনি।

কাজ না থাকায় বিপাকে পড়া সবার মত অন্যের দেওয়া সহায়তাই ছিল তার মূল ভরসা। কিন্তু সে সহায়তা নিয়মিত ছিল না। তাই বদলেছেন পেশা। বাইসাইকেল গ্রামে গ্রামে কাপড়
বিক্রি করেন তিনি। তবে দুর্যোগের এই দিনে থ্রি পিস,বেট সিট বিভিন্ন রকমের কাপড় বিক্রি করেও তেমন আয় হয় না জহরুলের।

দুপুরে চুড়িপট্টি মোড়ে এলাকায় কথা হয় জহুরুলের সাথে তিনি বলেন, গরিব মানুষ। বন্ধ চলতে হবে এর জন্য বাইসাইকেলের মাধ্যমে গ্রামে গ্রামে লুঙ্গি, গামছাসহ বিক্রি করি।

সকালে বের হয়েছি এখন দুপুর ২টা। সাতশো টাকা বিক্রি করছি। কয় টাকা লাভ হয়ছে।
কিন্তু সংসার তো চালাতে হবে। তাই বিকল্প পথ বেঁচে নিয়েছেন।

জহুরুল মত অনেকে বেকার হয়ে আছে। করোনাভাইরাস সংকটে জীবিকার অন্বেষণে পেশা বদলেছেন। তাদের মত বহু নিম্ন ও মধ্যবিত্ত মানুষ এই সংকটে বদলেছেন পেশা। এরা সকলেই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। বিভিন্ন এলাকা ঘুরলে এমন দৃশ্য চোখে পড়বে। জীবিকার তাগিদে তারা পেশা বদল করেছেন। তারপরও চিন্তা মুক্ত নন কেউই। করোনার দুর্যোগকালে কর্মহীন, নিম্ন ও মধ্যবিত্ত এ মানুষগুলোর সবচেয়ে বড় চিন্তা- দুমুঠো খাবার।