করোনা পরিস্থিতিতে জয়পুরহাট চিনিকলের শ্রমিকদের বেতন বন্ধ

ওমর আলী বাবু, জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ  করোনা পরিস্থিতিতে জয়পুরহাট চিনিকলের শ্রমিকদের ৩ মাস ধরে বেতন বন্ধ। ফলে মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা। মজুদ চিনি বিক্রি করতে না পারায় মিলের শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন বন্ধ রয়েছে।

চিনি বিক্রি হলে শ্রমিক কর্মচারীদের পাওনা পরিশোধ করা হবে বলে জনিয়েছে চিনিকল কর্তৃপক্ষ। গত মৌসুমে জয়পুরহাট চিনিকলে ৫৪ হাজার মেট্রিক টন আখ মাড়াই করে সাড়ে ৩ হাজার মেট্রিকটন চিনি ও ২ হাজার মেট্রিকটন চিটাগুড় উৎপাদন হয়। মৌসুম শেষে এখনও মজুদ আছে ১১ কোটি টাকার চিনি ও ৫ কোটি টাকার চিটাগুড়।

জয়পুরহাট চিনিকলে এক হাজার শ্রমিক-কর্মচারি রয়েছে। উৎপাদিত চিনি ও গুড় বিক্রি করেই তাদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করা হয়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে মজুদ চিনি ও গুড় বিক্রি করতে না পারায় তিন মাস ধরে বন্ধ রয়েছে বেতন-ভাতা। বেতন পাওয়ার নিশ্চয়তা না থাকায় ক্ষোভ জানিয়েছেন, জয়পুরহাট চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সহ-সাধারণ সম্পাদক জহুরুল হক জুয়েলসহ অন্য শ্রমিক নেতারা।

চিনিকলের ব্যপস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মোহাম্মদ আবু বকর জানান, অর্থ সংকটে বেতন দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। চিনি ও গুড় বিক্রি হলে শ্রমিক কর্মচারীদের পাওনা পরিশোধ করা হবে। এছাড়াও কর্মরত শ্রমিক কর্মচারীদের বেতন বাবদ প্রায় ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা বকেয়া রয়েছে বলেও জানান তিনি।