করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় বাগেরহাটে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে ‘স্কুলফিডিং’

মাহফুজুর রহমান বাপ্পী, বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ করোনার প্রভাবে দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকায় বাগেরহাটের শরণখোলায় ‘স্কুলফিডিং’ প্রকল্পের পুষ্টি সমৃদ্ধ বিস্কুট প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা রুরাল রিকনস্ট্রাকশন ফাউন্ডেশন (আরআরএফ) শনিবার সকাল থেকে এ কার্যক্রম শুরু করেছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের এ প্রকল্পের আওতায় জেলার শরণখোলা উপজেলার ১১৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি এবতেদায়ী মাদ্রাসার ১২হাজার ১০২ জন ছাত্র-ছাত্রীকে মাথাপিছু ৫০ প্যাকেট করে এ উচ্চ পুষ্টিসমৃদ্ধ বিস্কুট দেওয়া হবে। প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের সূত্রে জানা যায়, দারিদ্র পীড়িত এলাকার শিক্ষার্থীদের পুষ্টির অভাব পুরণে জন্য প্রায় ১০বছর ধরে সরকারের স্কুলফিডিং কর্মসূচী চালু রয়েছে।

এর আগে স্কুলে স্কুলে বিস্কুট দেওয়া হতো। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সমস্ত স্কুল বন্ধ থাকায় তাদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। শনিবার সকাল ১০টায় উত্তর কদমতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদেরকে অনুষ্ঠানিকভাবে এ বিস্কুট বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আশরাফুল ইসলাম, রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন, প্রেসক্লাবের সভাপতি ইসমাইল হোসেন লিটন, সাধারণ সম্পাদক মহিদুল ইসলাম, স্কুলের প্রধান শিক্ষক আ. রহমান, এনজিও সমন্বয় কমিটির সভাপতি মীর সরোয়ার হোসেন, আরআরএফ কর্মকর্তা রমেশ মন্ডল, সুজন সেন, মৃন্ময় হালদার, মিঠুন সরদার প্রমুখ।