করোনায় মৃত বৃদ্ধের সংস্পর্শে এসে পুরো পরিবার আক্রান্ত

মোঃ রাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলায় করোনাভাইরাসে মৃত সিরাজুল ইসলাম নামের এক বৃদ্ধের সংস্পর্শে থাকায় এবার তাঁর এক স্বজনের পুরো পরিবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূর-এ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ৯ এপ্রিল করোনা উপসর্গে মারা যাওয়া বৃদ্ধ সিরাজুল ইসলামের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করার পর করোনা পজিটিভ আসে। এরপর তাঁর সংস্পর্শে থাকা ১৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হলে পাঁচজনের করোনা শনাক্ত হয়। তাঁরা বর্তমানে আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন।

এরপরই ওই বৃদ্ধের জামাতার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হলে তাঁরও করোনা পজিটিভ আসে। তাঁকে আইসোলেশনে পাঠানোর সঙ্গে সঙ্গে তাঁর পুরো পরিবারকে লকডাউন করে রাখা হয়। অন্য স্বজনদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা শেষে গতকাল রোববার রাতে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, সিরাজুল ইসলামের জামাতার মা, স্ত্রী, ভাইয়ের স্ত্রী, দুই ছেলে ও বড় ভাইয়ের করোনা শনাক্ত হয়।

এ বিষয়ে সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূর-এ আলম বলেন, পশ্চিম ঢেমশা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ইছামতি আলীনগর গ্রামে মৃত্যুর পর করোনা শনাক্ত হওয়া বৃদ্ধ সিরাজুল ইসলামের দাফনে অংশ নিয়েছিলেন তাঁর জামাতা। এরপরই তাঁর করোনা শনাক্ত হয়। এ ছাড়া তাঁর সংস্পর্শে থাকা পরিবারের আরো ছয়জনের করোনা শনাক্ত হয়।

ইউএনও আরো জানান, বেশ কয়েকজনের করোনা উপসর্গ থাকায় জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সাতকানিয়া উপজেলাকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। এর পরও অনেকে লকডাউন অমান্য করে বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হয়ে ঘোরাঘুরি করে। সরকারের নির্দেশ অমান্য করে দোকান খোলা রাখার কারণে বেশ কয়েকজনকে জরিমানাও করা হয়েছে। এখন লকডাউন কার্যকরের জন্য প্রয়োজনে প্রশাসন কঠোর হবে। তাই সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানান ইউএনও।