করোনায় চাঁদপুর ঢাকা -চাঁদপুর নৌ পথে যাত্রী হিন লঞ্চ চলাচল, ১০ লঞ্চ বন্ধ রেখেছে মালিক পক্ষ

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর প্রতিনিধি: ঢাকা চাঁদপুর নৌ পথে চলাচলকারি লঞ্চ গুলো করোনায় বন্ধ থাকার পর চলাচল শুরু হলেও যাত্রী না পাওয়ায় হতাশার মধ্যে পরেছে লঞ্চ মালিক ও স্টাফরা। চাঁদপুর লঞ্চ টার্মিনাল ঘাটে গিয়ে দেখা যায় লঞ্চ গুলোতে একেবারেই যাত্রী শূন্য। মালিক পক্ষের প্রতিনিধি, স্টাফ ও বেশ কয়েক জন সুপারভাইজার জানান,করোনা সংক্রমনের ভয়ে যাত্রিরা লঞ্চে উঠতে চায় না।

আমরা ধারন ক্ষমতার চারভাগের এক ভাগ যাত্রী ও পাচ্ছিনা। এমন পরিস্হিতিতে মালিক পক্ষ লঞ্চ বন্ধ রাখতে হচ্ছে। চাঁদপুর থেকে প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে রাত সাড়ে ১২ পর্যন্ত সিডিউল সময়ে ৩০ টির মতো লঞ্চ চলাচল করে। গত ৩১ মে থেকে সরকার লকডাউন তুলে নিলে ঢাকা -চাঁদপুর নৌ পথে লঞ্চ চলাচল শুরু করে। ২/৩ দিন যাত্রীর ভীড় থাকলেও এখন একেবারেই যাত্রী শুন্য। যাত্রী না থাকায় গত কয়েক দিন থেকে কম পক্ষে ১০টি লঞ্চ মালিক পক্ষ বন্ধ রেখেছে। চাঁদপুর লঞ্চ ঘাটের একাধিক সূত্র থেকে জানা যায়, রফ রফ কোম্পানীর ৩টি লঞ্চ,সোনার তরীর ২টি লঞ্চ,ময়ূর কোম্পানীর ২টি লঞ্চ,জম জম কোম্পানীর ১টি লঞ্চ,তাকোয়া ও মিতালি ৭ নামক লঞ্চ সহ ১০টি লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বিআই ডব্লিটিএর পরিবহন পরিদর্শক মাহতাব উদ্দিন জানান, ঢাকা থেকে যে সব লঞ্চ চাঁদপুর ঘাটে আসে সে গুলোই আবার ছেড়ে যাচ্ছে। তবে ১শ থেকে ২৫০ জন যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে। এতে করে মালিক পক্ষ লোকসানের হার গুনতে হচ্ছে। মালিক পক্ষের প্রতিনিধি মোহাম্মদ বিল্পব সরকার জানান,ইতি মধ্যে ১০টির মতো লঞ্চ মালিক পক্ষ চলাচল বন্ধ রেখেছে করোনা মহামারিতে যাত্রী না পেয়ে।

এভাবে যাত্রী সংকট দেখা দিলে ঢাকা- চাঁদপুর নৌ পথে যে কোনো সময় লঞ্চ চলাচল বন্ধ হয়ে যেতে পারে। যে পরিমান ধারন ক্ষমতা নিয়ে লঞ্চ চলাচল করার কথা সে পরিমান যাত্রী পাওয়া যাচ্ছে না। মালিক পক্ষ তাদের খরচ মেটাতে না পারলে লঞ্চ বন্ধ রাখতে পারে। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত চাঁদপুর ঘাট থেকে ৮টি লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে।

এ গুলো হলো আল বোরাক,সোনার তরী ৪,গ্রীন ওয়াটার ৩,ঈগল ৭,স্বর্ন দ্বিপ প্লাস,আওলাদ ৪,সোনার তরী ৫ ও সোনার তরী ২।এসব লঞ্চ করোনা মহামারিতে একশ থেকে আড়াই শ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে চাঁদপুর ঘাট ত্যাগ করেছে।