এমবাপ্পের হ্যাটট্রিকে বার্সাকে ৪-১ ব্যবধানে উড়িয়ে দিল পিএসজি

এমন লজ্জার হার কি করে হয়? বার্সা ভক্তদের মনে এমন প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে। যেখানে চোটের কারণে স্পেন সফরে যেতেই পারেননি পিএসজির বড় দুই তারকা নেইমার ও আনহেল দি মারিয়া। সেখানে কিলিয়ান এমবাপ্পের কাছেই ঘরের মাঠে টিকতে পারলো না বার্সা।

শেষ পর্যন্ত ফরাসি ফরোয়ার্ডকে আটকাতে পারেনি বার্সেলোনা। চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যদের একাই হারিয়ে দিলেন এমবাপ্পে। পিছিয়ে পড়েও ২২ বছর বয়সী তারকার দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে বার্সাকে তাদেরই মাঠ ক্যাম্প ন্যুয়ে ৪-১ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়ে শেষ আটে পথে অনেকটা এগিয়ে গেল পিএসজি।

রাতের শুরুটা অবশ্য ভালোভাবে হয়নি গত আসরের রানার্স-আপদের। ২৭তম মিনিটে লিওনেল মেসির নেওয়া পেনাল্টি কিকে পিছিয়ে পড়ে পিএসজি। মিডফিল্ডার ফ্রাঙ্কি ডি ইয়ংকে নিজেদের ডি-বক্সের ভেতর ফাউল করে বসেন লেইভিন কুরজাওয়া। স্পট-কিক থেকে কেইলর নাভাসকে সহজে বোকা বানান বার্সা অধিনায়ক।

এরপরই স্বাগতিকদের বিরুদ্ধে নির্দয় হয়ে ওঠেন এমবাপ্পে। ফ্রান্সের হয়ে বিশ্বকাপজয়ী তারকা নাচিয়ে ছাড়েন স্বদেশি ডিফেন্ডার ক্লেমেন্ট ল্যাঙ্গলেটকে। বাম পাশের উইং ধরে ছুুটে মার্কো ভেরাত্তির পাস থেকে ৩২তম মিনিটে পিএসজিকে সমতায় ফেরান এমবাপ্পে।

বিরতি থেকে ফিরে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ৬৫তম মিনিটে পিএসজিকে এগিয়ে দেন এমবাপ্পে। ৮৫তম মিনিটে বদলি হিসেবে নামা হুলিয়ান ড্রাক্সলারের পাস থেকে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন তিনি। তার আগে লিয়ান্দ্রো পেরেদেসের পাস থেকে ৭০তম মিনিটে দলের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন এভারটন থেকে ধারে লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়নদের শিবিরে যোগ দেওয়া মইস কিন।

দ্বিতীয়ার্ধে পিছিয়ে পড়ে সমতায় ফিরতে চেষ্টা করেছিল বার্সা। কিন্তু একের পর এক কাউন্টার অ্যাটাকে কাতালান জায়ান্টদের জাল খুঁজে নেয় মাউরিসিও পচেত্তিনোর শিষ্যরা।  রাশিয়া বিশ্বকাপেও জোড়া গোলে একইভাবে বিশ্বের সেরা ফুটবলার মেসির আর্জেন্টিনাকে শেষ ষোলো থেকে ছিটকে ফেলেছিল এমবাপ্পে।

তবে কোয়ার্টার ফাইনালে যাওয়ার পথে মেসিকে এখন আত্মবিশ্বাস খুঁজতে হবে ২০১৬/১৭ মৌসুম থেকে। সেবার কোচ লুইস এনরিখের বার্সা শেষ ষোলোর প্রথম লেগ খেলতে প্যারিস সফরে গিয়ে বিধ্বস্ত হয়েছিল ৪-০ গোলে। তবে ফিরতি লেগে ইতিহাসের অন্যতম কামব্যাকের গল্প লিখে কাতালান জায়ান্টরা। নেইমারের অনবদ্য পারফর্ম্যান্সে ক্যাম্প ন্যুয়ে পিএসজিকে ৬-১ ব্যবধানে হারিয়ে শেষ আটের টিকেট কাটে বার্সা।  কিন্তু মেসি এখনও কাতালোনিয়ায় থাকলেও ব্রাজিলিয়ান তারকা ঠিকানা পাল্টে চলে গেছেন প্যারিসে।

দুই দলের দ্বিতীয় লেগ হবে ২০ মার্চ, প্যারিসে। সেই ম্যাচে উরুর চোট কাটিয়ে পিএসজির স্কোয়াডে ফিরতে পারেন নেইমার।