এমপি পাপুলের স্ত্রী ও মেয়ের আদালতে আত্মসমর্পণ

লক্ষ্মীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম ও মেয়ে ওয়াফা ইসলাম আত্মসমর্পণ করেছে। রোববার বিকালে ঢাকার সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করেন তারা। এদিকে, মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতার পাপুল, তার স্ত্রী, মেয়ে ও শ্যালিকার ৬১৭টি ব্যাংক হিসাব জব্দ ও ৯২ টি তফসিলভুক্তি স্থাবর সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২৭ ডিসেম্বর) দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম কে এম ইমরুল কায়েস এ নির্দেশ দেন। জ্ঞাত আয় বর্হিভূত এবং মানি লন্ডারিং মামলার প্রেক্ষিতেই এমন সিদ্ধান্ত। অর্থ ও মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতের কারাগারে আছেন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য শহিদ ইসলাম পাপুল। এরপর ১১ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, আসামিদের বিরুদ্ধে ২ কোটি ৩১ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ ও ১৪৮ কোটি টাকার লন্ডারিংয়ের অভিযোগ আনা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের আড়ালে জেসমিন প্রধানের পাঁচটি হিসাবের মাধ্যমে ২০১২ সাল থেকে ২০২০ পর্যন্ত লন্ডারিং হয় ১৪৮ কোটি টাকা। অথচ মাত্র বয়স ২৩ বছর বয়সী জেসমিনের নিজের কোনো আয়ের উৎস নেই।

অপরদিকে, এফডিআর হিসাবের ২ কোটি ৩১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৮ টাকার কোনো উৎস শ্যালিকা জেসমিন দাখিল করতে পারেননি। যে কারণে অবৈধ সম্পদের অভিযোগে কাজী সহিদ ইসলাম পাপুল এবং তার স্ত্রী এমপি সেলিনা ইসলাম, শ্যালিকা জেসমিন প্রধান ও মেয়ে ওয়াফা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।