একদিনে রেকর্ড পরিমাণ রোহিঙ্গা যাচ্ছে ভাসানচরে

একদিনে রেকর্ড পরিমাণ ২ হাজার ২৬০ জন রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তর করা হচ্ছে।

নৌবাহিনীর ৬টি জাহাজে করে ভাসানচরে নেয়া হয় তাদের।

আর উন্নত জীবনের আশায় স্বপ্রণোদিত হয়ে হাজার হাজার রোহিঙ্গা এখন ভাসানচর যেতে আগ্রহী হয়ে উঠেছে।

প্রত্যেকবারের মতো এবারো পঞ্চম ধাপের প্রথম যাত্রায় বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ৬টি জাহাজে ভাসানচরের উদ্দেশে রওনা হয়েছে ২ হাজার ২৬০ রোহিঙ্গা।

বুধবার সকাল ১০টার দিকে রোহিঙ্গাদের নিয়ে ভাসানচরের উদ্দেশে রওনা হয় নৌবাহিনীর জাহাজগুলো।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে ২০টি বাসে করে এক হাজার, বিকাল সাড়ে ৩টায় আরও ২০টি বাসে এক হাজারসহ মোট দুই হাজার ২৬০ রোহিঙ্গা নারী, পুরুষ ও শিশু নিয়ে উখিয়া থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে বাসগুলো রওয়ানা হয়।

রোহিঙ্গাদের বহনকারী বাস নিয়ন্ত্রণ করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দুটি বাস, দুটি অ্যাম্বুলেন্স সঙ্গে যেতে দেখা যায়। এছাড়াও তাদের মালামাল বহন করে ১১টি কার্গো ভ্যান।

শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনের অতিরিক্ত কমিশনার শামসুদ্দৌজা বলেন, এখন পর্যন্ত ১০ হাজার রোহিঙ্গা ভাসানচরে গেছেন।

উল্লেখ্য, মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও সরকারের দমন-পীড়নে নিপীড়িত ও বাস্তুচ্যুত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া সাড়ে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা

বর্তমানে টেকনাফ ও উখিয়ার ক্যাম্পগুলোতে বসবাস করছেন। তাদের নিজ দেশে সসম্মানে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার।

তবে এখানকার ঘিঞ্জি পরিবেশ থেকে নিরাপদ জীবনযাপনের জন্য আপাতত এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।