উল্লাপাড়ায় সরকারি গাছ কেটে নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান লিটন

 মোঃ আলমগীর হোসেন,  উল্লাপাড়া প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার বড় পাঙ্গাসী ইউনিয়নে ১১ টি সরকারি ইউক্যালিপটাস গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ন কবির লিটনের বিরুদ্ধে।

প্রায় দেড় লক্ষ টাকা মূল্যের গাছগুলো বিক্রির অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান,সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে মোহনপুর-উধুনিয়া রোডের ইউক্যালিপটাস গাছ সহ বিভিন্ন ধরনের গাছের চারা রোপন করে।

অথচ কয়েকদিন আগে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ন কবির লিটন বড় পাঙ্গাসী মাদ্রাসা মোড়ে এই গাছগুলো কেটে নেয়।

তার এই গাছ কাটার ফলে কৃষকরা খালের দু’ধারে জমিতে কৃষিকাজ করে এসব গাছের নিচে বসে বিশ্রাম নিতো কিন্ত এখন আর তা হবে না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি বলেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ অফিসের ঘর দেওয়ার অজুহাত দেখিয়ে গাছ গুলো আত্মসাত করেছে।

যেখানে আওয়ামীলীগ অফিসে ঘর দেওয়ার জন্য একটি গাছই যথেষ্ট ছিলো অথচ নিয়ম নিতির তোয়াক্কা না করেই তিনি বাকি সব গাছ গুলো কেটে আত্মসাত করেছে।

তার ভয়ে এলাকার কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না।

এছাড়াও প্রভাবশালী দল আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় নানা অপকর্ম করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।

নিয়মনীতি না মেনেই একজন চেয়ারম্যান হয়ে সরকারি গাছ কি করে কাটেন? তবে প্রতিবাদ কে করতে যাবে? যে প্রতিবাদ করবে তার নানা সমস্যা হবে।

তাই নিরবে চেয়ে দেখা ছাড়া উপায় কি? প্রশাসনের কাছে অনুরোধ গাছ কাটার বিষয়টি তদন্ত করে প্রযোজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হোক।

গাছ কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে বড় পাঙ্গাসী ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ন কবির লিটন মুঠো ফোনে তিনি বলেন,গাছ কাটার বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে আমি রাজি নই ।

উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেওয়ান মওদুদ আহমেদ বলেন,

গাছ কাটার বিষয়টি আপনাদের মাধ্যমেই জানতে পারলাম তবে চেয়ারম্যানদের সরকারি গাছ সংরক্ষন করতে বলা হয়েছে ।

বড় পাঙ্গাসী ইউপি চেয়ারম্যানের দ্বারা গাছ কাটার কোন ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।