উল্লাপাড়ায় ভ্রাম্যমাণ ভ্যানে করে বই বিক্রি : সংসার চলছে খুব কষ্টে

 মোঃ আলমগীর,  উল্লাপাড়া প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া পৌরসভার রতন কাওয়াক গ্রামের তিন মেয়ে, স্ত্রী আর মাকে নিয়ে আব্দুল করিম শেখের(৫০) সংসার। অভাব অনটন এ যেন নিত্য দিনের সঙ্গি। তবুও বই বিক্রির পেশাটা পরিবর্তন করতে মন চায়না তার। আগে এক সময় করতেন তাঁতের কাজ কিন্তু তাতে সংসার না চলায় নিজেকে একটু পরিবর্তন করে শুরু করেন বই বিক্রি।

গত ২০ বছর ধরে তিনি বই বিক্রি করে আসছেন।এবং তা অব্যাহত রেখেছেন। তবে পরিবর্তন হয়েছে স্থানের। আগে এক সময় হাতে করে হাট বাজার,ষ্টেশনে বই বিক্রি করতেন। কিন্তুু এখন বয়স বেড়ে যাওয়ায় ভ্রাম্যমান হিসেবে একটা অটো ভ্যানে বইয়ের পশড়া সাজিয়ে ঘুরে বেড়ান রাস্তা-ঘাট,হাট বাজার এবং পাড়া মহল্লায়।মাত্র ২ হাজা টাকা চালান নিয়ে বই বিক্রি করেন।প্রতিদিন ৩০০ টাকার মতো আয় হয় তার।আবার কোনো দিন বই বিক্রিও হয় না।তবে খুব কষ্টে দিন পার করছেন তিনি।

২০ হাজার টাকা লোন নিয়ে অটো ভ্যান বানিয়ে ভ্রাম্যমাণ ভাবে বই বিক্রি করছেন করিম শেখ। এসময় ভ্রাম্যমান বই বিক্রেতার আব্দুল করিম মিয়ার সাথে কথা হলে তিনি বলেন,জীবনে একটু ভালো থাকার আশায় তাঁতের কাজ ছেড়ে শুরু করছিলাম বই বিক্রি করা। ভাবছিলাম সংসারে একটু সুখ ফিরে আসবে কিন্তুু তা আর হলো না। তবে বই বিক্রি করে অনেক তৃপ্তি পাই। আমার কাছ থেকে যখন মানুষ বই কিনে নিয়ে যায় তখন আমি খুবই আনন্দিত হই। ভাবি এই বইয়ের মাধ্যমে কারো জীবনের আলো ফুটবে।

গান,গল্প,গজল,হাদিস,ছোটদের বই সহ ২০ ধরনের বই বিক্রি করেন তিনি। তিনি আরো বলেন,মেয়েদের তিনজনই লেখা পড়া করছে। সংসার চলছে এই বই বিক্রির টাকা থেকেই। তবে বই বিক্রি তেমন ভালো হচ্ছেনা। মানুষের হাতে হাতে এখন টাস ফোন। ফোনে এখন সব ধরনের বইয়ের এ্যাপস পাওয়া যায়। তাই আগের মত এখন আর তেমন একটা বই বিক্রি হয় না।