উল্লাপাড়ায় প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিনের বিরুদ্ধে বদলী বানিজ্যের অভিযোগ

মোঃআলমগীর হোসেন আলম উল্লাপাড়া( সিরাজগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় দূর্গানগর ইউনিয়নের ভাটবেড়া মাহমুদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন কর্মে ফাঁকী ও বদলী বানিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বর্তমান জনবান্ধব শিক্ষামুখী সরকার প্রাথমিক শিক্ষাকে জনগনের দোড়গোরে পৌছে দেওয়ার জন্য নিরলশ ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

এ ক্ষেত্রে প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন সরকারের এই পদক্ষেপের প্রতি সচেষ্ট না হয়ে তিনি বিধান বর্হিভূত ভাবে মাত্র ২ শতাধিক শিক্ষার্থীদের জন্য ৮ জন শিক্ষক এই প্রতিষ্ঠানে পাঠদানের জন্য রেখেছে। অথচ বিধান মতে প্রতি ৪০ জনে ১ জন হিসেবে মোট ৫ জন শিক্ষক থাকার কথা ।

এ ব্যাপারে ২ জন শিক্ষকের বদলির জন্য রেজুলেশন করা হলেও উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি ফরিদ উদ্দিন তার ক্ষমতা বলে বদলির বিষয়টি আজও সুরাহা হয়নি বলে জানা গেছে।

স্থানীয়দের অভিযোগে জানা যায়, তিনি সভাপতি হওয়ায় প্রায়ই নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দায়িত্ব পালন না করে বিভিন্ন শিক্ষকদের বদলী নিয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে তদবিরের জন্য ব্যস্ত থাকেন।

স্থানীয়রা আরো জানান, প্রধান শিক্ষকের কর্মে ফাঁকী দেওয়ার ফলে কোমল মতি শিক্ষার্থীরা সঠিক শিক্ষা ও পাঠদান থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

এবিষয়ে উল্লাপাড়া উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল-মাহমুদ এর সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই তবে শিক্ষক সমিতির নেতা হওয়ার করনে ২-১ জন শিক্ষক তার কাছে বদলি বিষয়ে যেতে পারে।

এবিষয়ে প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিনের সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, বিষয়টি সত্য নয় তবে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২০৩ জন বলে তিনি জানান।

তিনি আরো জানান ১ জন শিক্ষকের বদলির জন্য রেজুলেশন হয়েছিলো।উল্লেখ্য তার গ্রামের বাড়ি রাজমান এবং তার স্ত্রী রাজমান হাই স্কুলের শিক্ষক হলেও গ্রামে বসবাস না করে পৌর শহরের শ্যামলী পাড়ায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন বলে স্থানীয়রা জানান।