উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে সুপারিশপ্রাপ্তি: সব থানায় হবে আনন্দ উদযাপন

বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে চূড়ান্ত সুপারিশ পাওয়ার আনন্দ দেশজুড়ে সব থানায় একযোগে উদযাপান করবে পুলিশ।  আগামী ৭ মার্চ বিকেল ৩টা থেকে দেশের ৬৬০টি থানায় নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে এ অর্জনটি উদযাপন করা হবে।

শুক্রবার (০৫ মার্চ) বেলা সোয়া ১১টায় রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

‘ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠান ও বাংলাদেশ এলডিসি থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশপ্রাপ্তিতে দেশব্যাপী আনন্দ উদযাপন’ উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতির জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছে। মাত্র ৫০ বছরে এ অর্জনের কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবং দেশের সব জনগণের। এ অর্জনটিকে আমরা উদযাপন করবো, কারণ এটি ১৮ কোটি মানুষের অর্জন।

এছাড়া, ৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ভাষণ বাঙালি জাতির অন্যতম মাইলফলক। ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ইউনেস্কো ৭ মার্চের ভাষণকে “ডকুমেন্টারি হেরিটেজ” (বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য) হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। এটি আমাদের জন্য একটি বড় অর্জন।

এ দু’টি অর্জন উপলক্ষে আগামী ৭ মার্চ দেশের ৬৬০টি থানায় একযোগে আনন্দ উদযাপন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, এদিন পুলিশের সঙ্গে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সাধারণ মানুষ অংশ নেবেন। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠানে অংশ নিতে আহ্বান জানাচ্ছি।

ওইদিন সব থানায় বিকেল ৩টায় একযোগে উদযাপন শুরু হবে। নানা আয়োজনের মধ্যে থাকবে আলোচনা সভা, প্রীতিভোজ এবং সবার মধ্যে মিষ্টিবিতরণ।

বাংলাদেশের মানুষ বিস্মৃতিপ্রবণ উল্লেখ করে আইজপি বলেন, এক সময় মানুষ ভুলেই যাবে, দেশে দারিদ্র্য ছিল। আর এখন দারিদ্র্য জাদুঘরে যাওয়ার উপক্রম। ২০০৮ সালের পর থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নে আমূল পরিবর্তন এসেছে। আমাদের এ উদযাপনে দেশবাসীকে সামিল হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে বের হয়ে যাওয়ার সুপারিশপ্রাপ্ত হয় বাংলাদেশ। জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি) পাঁচদিনের বৈঠক শেষে এ সুপারিশ করেছে। তবে বাংলাদেশকে এলডিসি থেকে বের হতে ২০২৬ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

সাধারণত উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে যেসব দেশ তুলনামূলক দুর্বল, সেসব দেশকে স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ১৯৭১ সালে প্রথম স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা করা হয়। বাংলাদেশ ১৯৭৫ সালে এ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়। সব কিছু ঠিক থাকলে পাঁচ বছর পর এলডিসি থেকে বের হয়ে অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের কাতারে চলে যাবে বাংলাদেশ।