ইফতারের আগে দোয়া কবুল হওয়ার আমল

চলছে পবিত্র মাহে রমজান মাস। ধর্ম প্রাণ মুসলিমরা এ মাসে অন্যান্য মাসের তুলনায় একটু বেশিই নিবেদিত রাখে ইবাদতে।

রমজান মাসে ইবাদত করলে সওয়াব বেশি। রমজানে সেহরির মতোই অন্যতম হচ্ছে ইফতার।

ইফতার করা সুন্নত। তাই ইফতারের সময় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রোজা খোলা বা ছাড়ার তাগিদ দেয়া হয়েছে বিভিন্ন হাদিসে।

ইফতারের আগ মুহূর্তে দোয়া কবুল হওয়ার প্রসঙ্গে অনেকেরই জানার আগ্রহ থাকে।

রমজানে ইবাদত সম্পর্কে হযরত আবু হুরাইরাহ (রা.) থেকে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, প্রত্যেক আদম সন্তান ভালো কাজের প্রতিদান দশ থেকে সাতশ’ গুণ বেশি পাবে।

রোজা আল্লাহর জন্য। আল্লাহ নিজেই এর প্রতিদান দেবেন।

(মুসলিম–২৭০৭) এ থেকে এটা স্পষ্ট যে, রমজানে ইবাদত করলে অন্যান্য মাস বা সময়ের থেকে দশ থেকে সাতাশ গুণ বেশি সওয়াব পাবে বান্দারা।

আর আল্লাহ তা’আলা নিজে রোজার প্রতিদান দেবেন।

এছাড়া রমজন মাসে সারাদিন রোজা রেখে সন্ধ্যায় ইফতার সামগ্রী নিয়ে সূর্যাস্ত সময়ের জন্য অপেক্ষা করা মহান আল্লাহ’র কাছে পছন্দের দৃশ্য।

কেননা, বান্দা খাবার সামনে নিয়ে বসে থাকার পরও আল্লাহ’র ভয়ে মুখে তোলা থেকে বিরত থাকছেন। এ সময় আল্লাহ’র কাছে বেশি বেশি দোয়া ইস্তেগফার করা ভালো।

ইসলামিবীদরা বলে থাকেন, রোজাদারের মন নরম থাকে, এ কারণে মোনাজাতে তার আবেগও বেশি থাকে।

তাই ইফতারের আগে দোয়ার প্রতি মনোযোগী হওয়া বেশি প্রয়োজন।

এই সময় দোয়ায় দুনিয়া ও আখিরাতের বিষয়ে চাওয়া হয়ে থাকে।

না ফেরার দেশে চলে যাওয়া আত্মীয়-স্বজনসহ মা-বার জন্যও দোয়া করা উচিত এ সময়।