ইউপি নির্বাচনে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জালাল উদ্দিন খান

এম এস জিলানী আখনজী, চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ১নং গাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদে আওয়ামীলীগ দলীয় সম্ভাব্য

চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতিকের মনোনয়ন প্রত্যাশী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ তাঁতী লীগ গাজীপুর ইউনিয়ন শাখার

সভাপতি ও বিশিষ্ট সমাজসেবক মোঃ জালাল উদ্দিন খান। সে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই সম্প্রতি তিনি এলাকায় জনসংযোগ,

মতবিনিময় সভা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক কার্যক্রম ও এলাকার উন্নয়নমূলক সকল কর্মকাণ্ডে নিয়মিত অংশগ্রহণ করছেন।

তিনি উপজেলার ১নং গাজীপুর ইউনিয়নে প্রতিষ্ঠিত গাজীপুর রায়হানিয়া সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মরহুম মোঃ আব্দুল জাহির খান ও মাতা ফুল বানু বেগমের ষষ্ঠ তম ছেলে জালাল উদ্দিন খান।

জালাল উদ্দিন খানের পিতা জীবনদশা থাকাকালীন সময়ে যে শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত করেছেন সেখানেই শেষ নয়,

তিনি এর পাশাপাশি এলাকার বিভিন্ন সমস্যায় মানুষের পাশে থেকে সমাজের বিভিন্ন সমস্যা বিচার শালিশের মাধ্যমে সমাধান করে দিতেন এবং তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে সব সময় কথা বলতেন।

তিনি প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসাটি নিজের সম্পদ বিক্রি করে প্রতিষ্ঠা করে যান। যার ফলে সে মাদ্রাসাটি থেকে প্রতি বৎসর শত-শত গরীব অসহায় ছাত্র/ছাত্রীদের লেখা-পড়া করার সুযোগ হয়েছে।

জালাল উদ্দিন খান ব্যক্তি হিসেবে পরোপকারী, চিন্তাশীল, দানবীর ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের মানুষ হিসেবে পুরো ইউনিয়নসহ উপজেলাতে খুবই পরিচিত ও সকলের প্রিয় মানুষ তিনি।

এলাকার সমাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিকসহ নানামুখী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে আগে থেকেই নিয়মিত অংশগ্রহণ করতেন।

এলাকায় যথেষ্ট সুনাম রয়েছে তার। তিনি ২০০১ সালে বাল্লা স্থলবন্দরের জন্য বাংলাদেশ সরকারের নৌ পরিবহন মন্ত্রনালয়ে আবেদন করেন পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরের জন্য,

যা আজ দীর্ঘ ২১ বৎসর পরিশ্রমে বাল্লা স্থলবন্দরের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তিনি দীর্ঘ ১০ বৎসর যাবৎ বাল্লা স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

তিনি গাজীপুর হাইস্কুল এন্ড কলেজের অভিভাবক কমিটির নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হয়ে স্কুলের গরীব দুঃখী ও অসহায় ছাত্র/ছাত্রীদের বিভিন্ন সহযোগিতাসহ সাধ্যমত উপকার করার চেষ্ঠা করেছেন।

তিনি আসামপাড়া বাজার পরিচালনা কমিটির নির্বাচনে নির্বাচন করে বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়ে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং দীর্ঘ দুই বৎসর যাবৎ অত্যান্ত দক্ষতার সাথে দয়িত্ব পালন করে আসছেন।

এবার উপজেলার ১নং গাজীপুর ইউনিয়ন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ তাঁতীলীগ থেকে নৌকার মনোনয়ন পেলে,

চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে ইউনিয়নের সকল জনসাধারণের সুখ-দুঃখকে সাথী করে পুরো ইউনিয়নের সার্বিক উন্নয়নের দায়িত্বভার গ্রহণ করতে চান তিনি।

ইউনিয়নের অনেক বাসিন্দাদের সাথেই কথা হয়েছে বিষয়টি নিয়ে। তারা জানান, মরহুম মোঃ আব্দুল জাহির খানের উপকারের কথা ভুলার মত নয়,

জীবনদশায় সাধারণ মানুষের পাশে ছিলেন সবসময়। তার ধারাবাহিকতায় ছেলে জালাল উদ্দিন খানও মানুষের উপকার ও অসহায়দের সহযোগীতা করে যাচ্ছেন তার পিতার মত।

এই ইউনিয়নের মানুষদের সাথে মরহুম আব্দুল জাহির খান এর পরিবারের আত্মার সম্পর্ক ছিল, পিতার মতনই জালাল উদ্দিন খান সবসময় আমাদের সুখে দুঃখে পাশে থাকেন,

আব্দুল জাহির খান এর পরিবারের প্রতি আমাদের আস্থা ও বিশ্বাস আছে, আর এই আস্থা থেকেই তার ষষ্ঠ ছেলে জালাল উদ্দিন খানের পাশে আমারা আছি,

আমরা চাই শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীক দিয়ে তাকেই পাঠাবেন নির্বাচনে। জালাল উদ্দিন খান বলেন, আওয়ামীলীগ পরিবারে আমার জন্ম,

ছোটবেলা থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বেড়ে উঠেছি, রাজনীতি করি এলাকার মানুষের সেবা করতে, যুগের পর যুগ ধরে গাজীপুর ইউনিয়ন বাসীর সেবা করে যাচ্ছে আমার পরিবার,

আমার বাবা ছিলেন পরোপকারকারী গাজীপুর ইউনিয়ন বাসীর সেবা করেছেন নিরবে, নিভৃতে। ইনশাআল্লাহ আমাকে যদি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা

নৌকা প্রতীক দেন আর জনগণ যদি আমার পিতার মতন আমাকে ভালোবেসে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেন কথা দিচ্ছি নিজেকে বিলিয়ে দিবো মানুষের সেবায়।

আমি ভোটার হওয়ার পর থেকে বরাবরই আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আসছি। এবং আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে তখন থেকেই সম্পৃক্ত ছিলাম।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অন্যতম সহযোগী সংগঠন বাংলাদেশ তাঁতী লীগের গাজীপুর ইউনিয়ন শাখার সভাপতির দায়িত্বভার পালন করে আসছি।

সেই ছোটবেলা থেকেই সাধারণ মানুষের দুঃখ দূর্দশায় আমার প্রাণ কাঁদে। এবার আমি আপনাদের দোয়া ও আশির্বাদ নিয়ে আসন্ন ইউনিয়ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশ গ্রহণ করে ১নং

গাজীপুর ইউনিয়ন বাসীর জন্যে কিছু করতে চাই। আমি শতভাগ আশাবাদী। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা, বিশ্ব-মানবতার মা,

সফল রাষ্ট্রনায়ক, দেশরত্ন শেখ হাসিনা এবার আমাকেই গাজীপুর ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে জনগণের সেবা করার সুযোগ দিবেন।

আর এ সুযোগটি শতভাগ ইতিবাচকভাবে কাজে লাগিয়ে ইউনিয়নের সার্বিক উন্নয়নে নিজেকে উৎসর্গ করে দেয়ার অঙ্গীকার ও প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন তিনি।