আশুলিয়ার শ্রীপুর এলাকায় মজিবর রহমানের নিজস্ব অর্থায়ানে ড্রেন নির্মানে প্রভাব শালিদের বাধা

মৃদুল ধর ভাবন, আশুলিয়া প্রতিনিধি: সাভার আশুলিয়ায় শ্রীপুর বৈধভাবে জনসচেতনামূলক কাজ করাকে ভিন্ন চোখে দেখছেন একটি কুচক্রী মহল। বর্তমানে দেশে মহামারী পরিস্থিতিতে জলাবদ্ধতার কারণে শ্রীপুর বাস স্ট্যান্ড সংলগ্নে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ তৈরি হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে। উক্ত বিষয়টি তদন্ত পর্যবেক্ষণ করেন সচেতন মহলে, জলাবদ্ধতার কারণে জন স্বাস্থ্যহানির ঘটনার বিষয় সমুহ সত্যতা প্রকাশ পায়।

একাধিক গণমাধ্যম কর্মীর ক্যামেরাবন্দি হয় জলাবদ্ধতার দৃশ্য শত শত বাড়ি ঘর পানীতে ভেসে যাচ্ছে আশুলিয়া শ্রীপুর তালপট্টি এলাকায় জলাবদ্ধতায় আটকে দুর্গন্ধ পচা পানির কারণে জীবাণু ছড়ানোর আশঙ্কায় শিশু থেকে বৃদ্ধরাও।

এ ব্যাপারে আশুলিয়ার কন্ডা এলাকার কৃতি সন্তান বিশিষ্ট্য সমাজ সেবক ও গরীবের বন্ধু শিক্ষানুরাগী জনাব মোঃ মুজিবুর রহমানের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন করোনার প্রাদুর্ভাবের মহামারী পরিস্থিতিতে একটা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সারাদেশে। এমনই সময় শ্রীপুর বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন জলাবদ্ধতার কারণে পচা দুর্গন্ধে জনগণের চলাচলে ব্যাপক স্বাস্থ্যহানি ঘটছে বলে মনে করি। কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের সহযোগিতা করার পাশাপাশি নিজস্ব উদ্যোগে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করি বলে জানান মুজিবর রহমান । এমন কাজ করাটা একটি কুচক্রী মহল ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে মুজিবুর রহমান সহ সচেতন মহলের নামে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন কথা উত্থাপন করিয়াছেন যেটা আদৌ সত্য নয়।

মুজিবর রহমান বলেন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রতি কারো কোন অভিযোগ থাকার কথা নয় মসজিদ সারাজীবন দাঁড়িয়ে থাকবে মাথা উঁচু করে।সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে কুচক্রী মহলের তৎপরতা,তবে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে এলাকার শান্তির সুবাতাস বহন করার জন্য জনগণের প্রাণের দাবি,অনতিবিলম্বে জলাবদ্ধতা দূরীকরণ করে জনস্বাস্থ্যের উন্নতি করার জন্য এলাকার সচেতন মহলের দাবি,মুজিবুর রহমান নিজস্ব অর্থায়নে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করার জন্য প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ও স্ব উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

মিথ্যার বেড়াজাল ছিন্ন করে কুচক্রী মহলের হাত থেকে জন স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পচা দুর্গন্ধ জলাবদ্ধতা দূরীকরণে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করার জন্য অনতিবিলম্বে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।