আশুগঞ্জে পবিত্র শবে বরাতের রাতে ৯ বছরের শিশুকে ধর্ষণ

বাবুল সিকদার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়া আশুগঞ্জে শবে বরাতের রাতে সোনারামপুরে এক চাতাল কল শ্রমিকের ৯বছরের কন্যা শিশু ধর্ষণে শিকার হয়েছে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিশুটিকে উদ্ধার করে রক্তাক্ত অবস্থায় আশুগঞ্জ থানায় হাজির হয় তার মা বাবা।

শিশুটির গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে, তার পরিবার আশুগঞ্জ চাতাল কলে কাজ করেন। আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাবেদ মাহমুদ জানান,পবিত্র শবে বরাতের ধর্ষণের শিকার ওই শিশুকে নিয়ে তার বাবা-মা থানায় আসে। এ সময় শিশুর অবস্থা গুরুতর দেখে তাৎক্ষণিক তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওসি আরো জানান, ধর্ষণের শিকার শিশুটির বাবা আশুগঞ্জের সোনারামপুরের জোহরা অটোরাইস মিলে চাতাল শ্রমিমক হিসেবে কাজ করেন। পাশেই সোনারামপুরের আবাবিল অটোরাইস মিলে চাতাল শ্রমিক হিসেবে কাজ করে লিটন নামে এক ব্যক্তি। ধর্ষণের শিকার ওই শিশুর বাবা ও লিটন পূর্বপরিচিত। লিটন অবসর সময়ে একটি অটোরিকশা চালাত। কিছুদিন আগে অটোরিকশাটি ধরে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

শিশুর পরিবারের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে জানায়, বিকেলে শিশুটি চাতাল কলের ভেতরে খেলা করছিল। এর কিছুক্ষণ পর শিশুটির বড় ভাইয়ের বন্ধু আরেক চাতাল কলের শ্রমিক লিটন সেখানে আসে। এসময় শিশুটিকে ফুসলিয়ে নিয়ে গিয়ে ধান ক্ষেতে ধর্ষণ করে ফেলে দিয়ে যায়।

সন্ধ্যায় ওই শিশুর এক সহপাঠী তার পরিবারকে এসে জানায় শিশুটি রক্তাক্ত অবস্থায় ধান ক্ষেতে পড়ে আছে। এ খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরা গিয়ে শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর খবর পাওয়া যায় অভিযুক্ত লিটন থানার সামনে দিয়ে ঘুরাঘুরি করছে। পুলিশকে জানালে লিটনকে আটক করা হয়।