আশুগঞ্জে তিনমাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলনের নির্দেশ

বাবুল সিকদার,আশুগঞ্জ (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে দগরিসার গ্রামের ইয়াকুব ভুইয়াকে মারধর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু-আদালতে মামলা করেছে তার পরিবার। ইয়াকুব ভুইয়ার স্ত্রী জানান,৩০শে নভেম্বর ২০১৯ সোমবার দিবাগত রাত ৯ টায় তিনি এশার নামাজ পড়ে বাড়িতে আসার সাথে সাথে,পূর্ব শত্রুতার জেরধরে ছাদির মিয়া ও তার ছেলেরা তাদের দলবলসহ ইয়াকুব ভুইয়াকে ঘর থেকে টেনে হেছড়ে বের করে মারধর শুরু করে।
তার ছোট ছেলে লিটন বাবাকে উদ্ধার করতে এগিয়ে আসে তখন তার উপড়ও আক্রমন করে ছাদির মিয়া ও তার সহযোগীরা। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে আহত অবস্থায় ইয়াকুব ভ্ইুয়াকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। ইয়াকুব ভুইয়ার অবস্থা বেশি ভালো না বলে ঢাকা হাসপাতালে রেফার্ড করে জেলা সদর হাসপাতালের ডাক্তারগণ। ঢাকা হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নিয়ে আসার তিনদিন পর ইয়াকুব ভুইয়া মারা যান।
ইয়াকুব ভুইয়ার পরিবার ও এলাকাবাসী আদালতের কাছে তার হত্যার সুষ্ঠ বিচারের দাবি করেন। পরে তার চাচা মো.সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে ১০জনকে আসামিকরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। তার পরিবার আরোও বলেন পরিস্থিতি বিবেচনায় তখন থানায় না জানিয়ে পোষ্ট মর্টেম ছাড়াই তাঁর লাশ দাফন করা হয়েছিল। গত (২০ ফেব্রুয়ারি )বৃহস্পতিবার কবর থেকে লাশ উত্তোলন করার নির্দেশ দেন আদালত।এ ব্যাপারে আশুগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ জাবেদ মাহমুদ জানান, আদালতের নির্দেশ পেয়েছি ভিকটিমের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হবে এবং ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদর হাসপাতালে ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হবে।