আশুগঞ্জে অসহায় পরিবারের পাশে-লালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ

বাবুল সিকদার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি: করোনাভাইরাস সতর্কতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ বন্দরসহ উপজেলার বিভিন্ন মিল কারখানা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রয়েছে। ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছে উপজেলার খেটে খাওয়া মানুষগুলো। বিশেষ করে যারা দিন আনে দিন খায় এমন মানুষগুলি বেশি বেকায়দায় পড়েছেন। এ অবস্থায় এসব অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন লালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন। মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) সকালে অসহায় খেটে খাওয়া এক হাজার পরিবারের মাঝে চাল-ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী বিতরণ করেন।
এ উপলক্ষে লালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কার্য়ালয়ে আয়োজিত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু নাসের আহমেদ,আওয়ামীলীগ নেতা মোবারক আলী চৌধুরী,বাবু সুহাস দাস চৌধুরী,সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহিন সিকদার,সাধারন সম্পাদক মো.সালাহউদ্দিন, এসব দ্রব্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনকালে উপজেলা আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আবু নাসের আহমেদ,বলেন, সরকার বিদ্যমান পরিস্থিতিতে কর্মহীন কেটে খাওয়া মানুষের জন্য বরাদ্ধ দিয়েছেন।
তবে এ দুর্যোগ সরকারের একার পক্ষে মোকাবিলা সম্ভব নয়। তাই সরকারের পাশাপাশি লালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন মত বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন, চরচারতলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আইয়ুব খান, সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান,আওয়ামীলীগ নেতা মো.মোস্তফা সারোয়ার,লিটন মেম্বার,মোবারক হোসেন,মোছা মিয়া,দেবাশীষ দাস,সোহেল,জামাল উদ্দিন,ছাত্রলীগ নেতা আজিজুর,রাসেল,জোবায়ের আহম্মেদ,নওশাদ মিয়া,শুভ,সনদীব ,সাজু,সাকিব,সালমান,নীলয়,প্রমুখ। পরে লালপুর ইউনিয়নের এক হাজার হতদরিদ্র মানুষের মাঝে এসব নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।
বিতরণকাজে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সহযোগিতা করেন। তারা দুস্থ মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এসব সামগ্রী পৌঁছে দেন। এ বিষয়ে লালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মোরশেদ মাস্টার বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতির ফলে খেটে-খাওয়া মানুষগুলো কর্মহীন হয়ে পড়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এসব মানুষের কথা ভাবেন, এ জন্য তিনি বরাদ্দও দিয়েছেন। তবে সরকারী বরাদ্দের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিৎ। এ অনুভূতি থেকেই আমাদের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে এই সামান্য আয়োজন।