আলেয়ার মুখে হাসি ফুটলো প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেয়ে

মোহাম্মদ বিপ্লব সরকার, চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি: চুলায় আগুন জ্বলে, হাঁড়ি চড়লেও তাতে রান্নার সামগ্রী নেই ঘরে। গত কয়েকটি দিন না খেয়ে অনাহারে থেকে এমন কঠিন বাস্তবতার মুখোমুখি গৃহবধূ আলেয়া বেগমের পরিবারে। অবুঝ সন্তানরা নিত্য মায়ের মুখে তাকিয়ে থাকে খাবারের জন্য কান্না করতো । কারণ তাদের ধারণা রান্না শেষ হলেই বুঝি খাবার জুটবে। কিন্তু দিনদিন চুলোর দুয়ারে মায়ের রান্না করার মিথ্যা ছলনা সন্তানরা এখন জেনে গেছে। তবে হতাশ নন, আলেয়া বেগম।

চাঁদপুর শহরের জিআরপি রেলওয়ে কলোনির পেছনের বস্তিতে আলেয়া বেগমের কাঁচা বসতঘর। বৃহস্পতিবার দুপুরে সেখানেই পৌছে যায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার। চালসহ আরো নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্যসব খাদ্যসামগ্রী। আর তা হাতে পেয়ে আলেয়া বেগম ও তার পরিবার বেজায় খুশি। করোনা পরিস্থিতির স্বীকার শুধু এমন একজন অসহায় আলেয়া বেগমই নয়।আলেয়ার মতো কয়েক হাজার পরিবারের কাছে পৌছে গেছে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর উপহার যাবে বাড়ি, প্রধানমন্ত্রীর উপহার নামে জেলা প্রশাসনের মানবিক খাদ্য সহায়তা।

চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান জানান, গত পহেলা এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ। যারা এখন অসহায় এবং অমানবিক জীবনযাপন করছেন, তাদের খুঁজে বের করে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে এমন খাদ্য সহায়তা। চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এই মানবিক কাজ সম্পন্ন করতে ৪০ জন স্বেচ্ছাসেবক রাতদিন দায়িত্ব পালন করছেন। শুধু তাই নয়, খাদ্যসামগ্রি প্যাকেটজাত করা এবং খাদ্য সঙ্কটে পড়া পরিবারগুলোর বাড়িতে পৌছে দেওয়া পর্যন্ত নিরলসভাবে কাজ করছেন এসব স্বেচ্ছাসেবক।