আ’লীগের কড়া সমালোচকও অভাবী হলে রেশন পাবে: মেয়র নাছির

মোঃরাশেদ, চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ ওএমএস কার্ড বিতরণ করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। চট্টগ্রাম: দলমত নির্বিশেষে নিম্ন ও মধ্যবিত্তদের ওএমএস কার্ডে অন্তর্ভুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মাথায় রেখে কঠোর পরিশ্রম ও তদারকি করেছি। স্থানীয় কাউন্সিলরদের বার বার তাগাদা দিয়েছি। এখন ওএমএস কার্ড তালিকা তৈরি প্রায় শেষ। শুরু হয়েছে কার্ড বিতরণ, যার সুফল পাবেন নগরবাসী।
বুধবার (২৯ এপ্রিল) ১০ নম্বর উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয় প্রাঙ্গণে ওএমএস কার্ড বিতরণের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনকালে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন এসব কথা বলেন। মেয়র বলেন, সরকার কয়েক বছর ধরে পঞ্চাশ লাখ পরিবারের মধ্যে মাসে ৩০ কেজি করে ১০ টাকা দরে চাল দিচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী নতুনভাবে যে পঞ্চাশ লাখ রেশন কার্ড করা হবে। সেগুলোতে প্রকৃতপক্ষে যাদের প্রয়োজন তাদেরই অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। এ কার্ড করার ক্ষেত্রে আমরা সতর্কতা অবলম্বন করেছি, কারণ একজন মানুষও অভাবে থাকুক সরকার সেটা চায় না। তিনি বলেন, যিনি আওয়ামী লীগের কড়া সমালোচক, কোনো সময় আমাদের দলকে ভোটও দেননি, তিনি যদি প্রকৃতপক্ষে অভাবী হন প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত রেশন কার্ডে তার নামও অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। যেহেতু আমরা নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি সেহেতু আমাদের দায়িত্ব অনেক বেশি।
ক্রান্তিলগ্নে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের একান্ত দায়িত্ব। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে কিছু মানুষ নতুনভাবে সংকটের মধ্যে পড়েছে উল্লেখ করে মেয়র বলেন, শ্রমজীবী মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তাদের প্রতিদিন ইনকাম ছিল, এখন কিন্তু ইনকাম নেই। আবার সবাই ত্রাণ চাইতেও পারে না, নিজেদের সমস্যার কথা মুখ ফুটে বলছেন না। ‘আমাদের খেয়াল করে নিজেদের বিবেচনায়, যারা চাইতে পারে না তাদের কাছে ত্রাণ পৌঁছানো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আবার যারা ভালো মতো চাইতে পারে, দেখা যাচ্ছে সে সবার কাছ থেকে নিচ্ছে। এইটা যাতে না হয় পুরো বিষয়টার মধ্যে একটা সমন্বয় হওয়া প্রয়োজন।’ করোনাভাইরাস নিয়ে যেকোনো ধরনের অপপ্রচারের বিষয়ে সতর্ক থাকতে নগরবাসীকে আহ্বান জানান মেয়র। কার্ড বিতরণকালে প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর ড. নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু, নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবিদা আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।