আলমডাঙ্গার কেশবপুরে পুর্ব শত্রুতার জেরে ৩ জনকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম

রহিদুল ইসলাম রহিত, আলমডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার কেশবপুরে পুর্ব শত্রুতার জেরে ৩ জনকে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে প্রতিপক্ষরা।

জখম অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে হারদি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ বিষয়ে থানায় মামলা একটি মামলা হয়েছে।

অভিযোগ বা মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার বিকাল ৫ টার দিকে সামিউল এবং তার মা লাবণী খাতুন কেশবপুরের মমিনের বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময়

ষড়যন্ত মূলক ভাবে হেসো, লাঠি, কিল, ঘুষি, লাথি দিয়ে প্রচন্ড আঘাত করে।কেশবপুর গ্রামের সাদুর ছেলে গরীব,

রিয়াজের ছেলে সিরাজুল,রইছদ্দির ছেলে রসুল। এই চার জন মিলে সামিউল এবং লাবণী কে প্রচন্ড মার ধর করে

এবং চুলের মুঠো ধরে রাস্তায় টানা হেচরা করে শ্লীলতাহানি করে।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আতিয়ার এবং বাদশা ছুটে আসলে গরিব,মেহের,

সিরাজ ও রসুলের বাহিনী ওত পেতে থেকে চতুর দিক থেকে আতিয়ার এবং বাদশাকে ও প্রচন্ড মার ধর করে নবিছদ্দির ছেলে রইছদ্দি,

মৃত রিয়াজের ছেলে ইউনুস, সাদু, কাউছার, জামাত নেতা আবদুল গফুর মিঠু,সোহাগ,সোলাইমান এবং আবুল।

সামিউলের মা জানান আমার একমাত্র সন্তান তার বাবা প্রবাসে থাকে অসহায় হয়ে সন্তানকে নিয়ে সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার আশায় প্রশাসনের দারে দারে ঘুরছি।

আসামিরা আমার ছেলেকে অপহরণ করে মেরে ফেলার পায়তারা করছে সিরাজ বাহিনী।আমার হাঁস, মুরগী, গরু,ছাগল নিয়ে ও তারা সমস্যা তৈরি করে।

অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। আমি এর বিচার চাই। উল্লেখ্য ইতোপূর্বে সামিউলের স্বজনরা জমি নিয়ে চুয়াডাঙ্গা কোর্টে মামলা করে সিরাজও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে।

এ মামলা তুলে নেওয়ার জন্য সিরাজ বাহিনী বিভিন্ন সময়ে হুমকি দিয়ে যাচ্ছিল।এরই সূত্র ধরে ঘটেছে মারামারি। সামিউল,

তার মা লাবনী ও তার চাচাকে বেধড়ক মারধর করে সিরাজ বাহিনী।পথচারীরা উদ্ধার করে তাদের হারদি হাসপাতালে ভর্তি করে।বর্তমানে তারা সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে।