অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফীকে আর দেখা যাবেনা

অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফীকে আর দেখা যাবেনা লিমিটেড ওভার ক্রিকেটে। বাংলাদেশের ক্রিকেটকে রাঙিয়েছেন অধিনায়কত্বের জাদুর ছোয়ায়। ঢাল হয়ে ছিলেন সতীর্থদের সাথে পাশে ক্যাপ্টেন ম্যাশ। নড়াইলে চিত্রা দাপিয়ে বেড়ানো কৌশিক বিদায় বেলাতেও অনন্য অসাধারণ।
একটা অধ্যায়ের সমাপ্তি, বীরত্বগাধা এক অধ্যায় যেখানে নিজেকে উজার করে দিয়ে গেলেন অধিনায়ক। অতপর বিষন্ন বিদায়ের ঘোষণা। আমাদের মাশরাফী ম্যাজিক্যাল মাশরাফী, নেতা মাশরাফী। নেতৃত্বের শেষটা টানলেন বিষাদের বিউগল বাজিয়ে।ফাইটার, প্রেরণা, অভিভাবক বাংলাদেশের লিমিটেড ওভার ক্রিকেটকে বদলে দেয়ার মহানায়ক মাশরাফী।
যার রূপকথার শুরুটা তৃতীয়বার নেতৃত্বের দায়িত্ব গ্রহণের পর ২০১৪-র নভেম্বরে। এরপর অধিনায়ক হিসেবে টানা ৪৫ ম্যাচ নেতৃত্ব দিয়েছেন ম্যাশ ৬ মার্চ দায়িত্ব ছাড়ার সময় সংখ্যাটা ৮৮। জয়ের হার প্রায় ৫৮ ছুইছুই।বাংলাদেশের পাকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকা-ভারতের বিপক্ষে সিরিজ জয়।
বিশ্বকাপের কোয়ার্টার আর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল খেলা এশিয়া কাপের ফাইনালে ওঠাকে নিয়মে পরিণত করা, প্রথমবার ট্রাইনেশন্স সিরিজ জয়, সাত অস্ত্রোপচার নিয়েও নড়বড়ে হাটুর অধিনায়ক মাশরাফীর ছোয়ায়।
নেতৃত্বের মোহমুগ্ধতা এতই প্রবল ছিল যে পারফরমেন্সে আলোটা ছিল যেনো দূরে সরে। অধিনায়ক হিসেবে শত উইকেট শিকারীর পাঁচ বোলারের একজন ম্যাজিক্যাল মাশরাফী।সতীর্থ ছাপিয়ে অভিভাবক মাশরাফী মিরাজ-মোস্তাফিজ-মাহমুদুল্লাহদের আগলে রাখা অধিনায়ক মাশরাফী ছাড়িয়ে দেয়ার আগেই, ছেড়ে দিলেন দায়িত্বের ভার। সতীর্থের বুকের নি:শব্দ রক্তক্ষরণ কেউ দেখবেনা।
নড়াইলের চিত্রা নদী দাপিয়ে বেড়ানো ছেলেটা পুরো দেশের নেতা হয়ে ওঠেন যখন সাধারণ তখন প্রাণ ফিরে পায় সাধারণ থেকেই তো মাশরাফীর ম্যাশ হয়ে ওঠা, নড়াইল এক্সপ্রেস অতপর অসাধারণ অতপর কিংবদন্তি হয়ে ওঠা।মাশরাফীরা চোর কেনো হবেন? চোরেদের সংগ্রাম টিকে থাকার আর বীরের বিদায় নিভৃতে সাধারণদের কাঁদিয়ে যেখানে নির্বাক প্রকৃতিও।
‘থ্যাঙ্কিউ ক্যাপ্টেন’